মেইন ম্যেনু

রাজশাহীর জিমনেসিয়ামে হাউজি খেলা বন্ধ করতে বললেন সাংসদ বাদশা

সরকার দুলাল মাহবুব, রাজশাহী থেকে: রাজশাহী মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়াম সংলগ্ন জিমনেসিয়ামে হাউজি খেলা বন্ধ করতে বললেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক, রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা।

নগরীর জাফর ইমাম টেনিস কমপ্লেক্সে ডাইনিং রুম কাম অফিস এর ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধনকালে রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা সেখানে উপস্থিত রাজশাহী জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক রফিউস সামস প্যাডিকে উদ্দেশ্য করে সংসদ সদস্য বাদশা বলেন, রাজশাহী জেলা জিমনেসিয়ামে কোন অবস্থাতেই হাউজি খেলতে দেয়া হবে না। অবিলম্বে সেখান থেকে হাউজি বন্ধ করতে হবে।

এসময় তিনি জিমনেসিয়াম ছেড়ে দিয়ে অন্যত্র হাউজি খেলার ব্যবস্থা করার কথা বলেন। প্রয়োজনে তিনি টিন দিয়ে বা অর্থ দিয়ে সহযোগিতা করবেন বলেও আশ্বাস দেন।

রাজশাহী জেলা ক্রীড়া সংস্থার কর্তা ব্যক্তিরা লাখ, লাখ টাকা আয় করেন বলে অভিযোগ রয়েছে। রাজশাহীতে অন্য কোন খেলা হোক আর না হোক হাউজি খেলা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে নিয়মিতভাবেই।

হাউজি খেলে অনেকে লাভবান হলেও নি:স্ব হয়েছে অনেকেই। নগরবাসী তো বটেই নগরীর বাইরে থেকেও অনেকেই আসে হাউজি খেলতে। তারা আসে বাস, মাইক্রেবাস ভাড়া করে। সন্ধ্যা নামার সঙ্গে সঙ্গে তারা ডিড় জমাতে থাকে জেলা জিমনেসিয়ামে। তারপরে নির্দিষ্ট সময়ে শুরু হয়ে যায় হাউজি খেলা।

রাত ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত চলে এ খেলা। ঝড় বৃষ্টির দিনেও বন্ধ থাকে না হাউজি খেলা। যখন জিমনেসিয়ামে সংস্কার কাজ চলে তখনও বন্ধ থাকে না এ খেলা। জিমনেসিয়ামে অনুষ্ঠিত হতে না পারলে তা স্থানান্তর করে নিয়ে আসা হয় মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামে। কিন্তু বন্ধ থাকে না হাউজি খেলা। এমনকি রমজান মাসেও বন্ধ থাকে না। জমজমাটভাবেই চলতে থাকে।

স্থানীয়রা অভিযোগ করেন, হাউজি খেলার কারণে এলাকার পরিবেশ নষ্ট হলেও তা বন্ধ হয় না। হাউজি খেলাকে কেন্দ্র করে অনেক সময় অনেক অপ্রীতিকর ঘটনাও ঘটেছে। হাউজি খেলা বন্ধ থাকলে সেখানে সুন্দর পরিবেশ বিরাজ করে বলে জানিয়েছেন সেখানকার ভুক্তভুগীরা। জেলা জিমনেসিয়ামে ইনডোর গেম হওয়ার কথা থাকলেও ইনডোর গেমের পাশাপাশি সেখানে চলতে থাকে হাউজি খেলা। ফলে পরিবেশ হয় বিঘিœত।