মেইন ম্যেনু

রাণীনগরে বিষ প্রয়োগ করে ৩ লাখ টাকার পাঙ্গাস মাছের রেনু পোনা নিধন

নওগাঁর রাণীনগরে পূর্ব শক্রতার জের ধরে লিজকৃত পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে প্রায় ৩ লাখ টাকার পাঙ্গাস মাছের রেনু পোনার নিধন করা হয়েছে। এ ঘটনায় ১২ জনকে আসামী করে রাণীনগর থানায় একটি লিখিত এজাহার দায়ের করা হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার দিঘীরপাড় গ্রামের আলহাজ্ব আজিজার রহমানের ছেলে রেজাওয়ান বাদশা দীর্ঘদিন ধরে ঘাটাঘন মৌজার দিঘীরপাড় কওমী মাদ্রাসার ১একর ৩৩ শতক জমির পুকুর লিজ নিয়ে মাছ চাষ করে আসছিল। গত ১০-১২দিন পূর্বে ওই পুকুরে মৎস্য চাষী রেজাওয়ান প্রায় দুই হাউজ পাঙ্গাস মাছের রেনু ছেড়ে দেয়। এমতাবস্থায় গত শনিবার রাত অনুমান পৌঁনে ১২টায় আসামীরা পরস্পর জোগসাজগে পূর্ব পরিকল্পনা মোতাবেক ওই পুকুর পাড়ে প্রবেশ করে পুকুরের চার পাশে বিষ ছিটাতে থাকে।

আসামীদের আনাগুনায় পুকুরের পাহাড়াদার হাসান আলীর ট্চ লাইটের আলোতে আসামীদের দেখতে পেয়ে মোবাইল ফোনে তাৎক্ষনিক ভাবে রেজাওয়ান কে সংবাদ দিলে রেজাওয়ানসহ তার চাচা, চাচাতো ভাই পুকুরে গিয়ে দেখতে পায় পানি থেকে বিষের গন্ধ আসছে। সকাল হতেই সমস্ত মাছ মরে ভেসে উঠলে প্রায় ৩ লক্ষ টাকার ক্ষতি সাধিত হয় বলে রেজাওয়ান জানান।

এব্যাপারে রাণীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লাহ আল-মাসউদ চৌধুরী জানান, গত রবিবার রেজাওয়ান বাদশা বাদি হয়ে উপজেলার দিঘীরপাড় গ্রামের মৃত রফিক শাহর ছেলে শামসুল (৫৫), গুমির শাহর ছেলে ময়েন (৪৫), হাতেম শাহর ছেলে মজিবর রহমান (৩৮), ময়েন শাহর ছেলে রহিম (৩৫), জয়নুল (২৮), হাতিম শাহর ছেলে আজিজার রহমান (৪২), মনজুরুল (৩০), ময়েজের ছেলে রাজু (২৪), সুলতান (৩৫), ময়েন শাহর ছেলে আমিনুর (২৫) সহ ১২জন কে আসামী করে রাণীনগর থানায় একটি লিখিত এজাহার দায়ের করা হয়। আমি এজাহারের কপি পেয়ে সাথে সাথে ঘটনাটি পুরোপুরি জানার জন্য এসআই রইচ উদ্দিনকে ঘটনাস্থলে পাঠালে বিষয়টির সত্যতা পাওয়া গেছে।