মেইন ম্যেনু

রাণীশংকৈলে মাদকাসক্তদের ব্যাপক অত্যাচারে ইউএনও কে অভিযোগ

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার ডিগ্রী কলেজ ছাত্র-ছাত্রীদের আবাসিক হোস্টেল না থাকার কারণে বিভিন্ন ম্যাস,ছাত্রাবাসে ভাড়া দিয়ে কষ্ট করে পড়ালেখা করতে হয়। হরিপুর, ধর্মগড় কাশিপুর, কাঠালডাঙ্গী, বালিয়াডাঙ্গী হতে ছাত্র-ছাত্রীরা পড়ালেখা করতে রাণীশংকৈল ডিগ্রী কলেজে আসে। আর এই নিরীহ ও মেধাবী দুর দুরান্তের ছাত্র-ছাত্রীদের সুযোগ পেয়ে বসে এক দল এলাকার মাদক গ্রস্থ বিভিন্ন বয়সের বখাটে কিছু ছেলে এর সাথে জড়িত বলে ছাত্রাবাসে সাইকেল চুরি সহ মাদক সেবীদের ব্যাপক অত্যাচারে রানীশংকেল ডিগ্রী কলেজের বিভিন্ন বর্ষের ছাত্রা-ছাত্রীরা ইউএনও খন্দকার মোঃ নাহিদ হাসান কে অভিযোগ করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন আ’লীগ সভাপতি সইদুল হক, সম্পাদক তাজউদ্দীন, মেয়র মকলেসুর রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহফুজা বেগম পুতুল, আব্দুল হামিদ মাস্টার, প্রভাষক সফিকুল ইসলাম শিল্পী সহ আরো অনেকে।

এ সময় উপজেলা পরিষদে উপস্থিত বিভিন্ন ম্যাসে থাকা শতাধিক ছাত্র-ছাত্রীদের অভিযোগ ইউএনও ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও আ’লীগ সভাপতি ছাত্র-ছাত্রীদের শান্ত থাকতে বলেন এবং বিষয়টি গরুত্ব সহকারে দেখা হবে বলে আসস্থ করেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে মাদক সেবীদের বিষয়ে কি প্রতিক্রিয়া হতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন আজ হতেই মাদক নিধন কার্যক্রম শুরু হল। তবে সকলের সহযোগিতা একান্ত প্রয়োজন। দেশে মাদক সেবীদের সংখ্যা প্রতিনিয়ত বেড়েই চলছে। কারও কোন সুপারিশ গ্রহণ করা হবে না। কারণ মাদক একটি সামাজিক ব্যাধি হিসাবে আমাদের সোনার দেশটিকে ধীরে ধীরে ক্ষতি সাধন করছে। অভিভাবকগণ প্রতিটি মুহুর্তেই তার আদরের সন্তানকে (নেশা গ্রস্থ) নিয়ে দুঃচিন্তায় থাকেন। যা আমাদের সকলের বিবেককে নাড়া দেয়।

তিনি বলেন (ইউএনও) প্রতি মাসের প্রথম সপ্তাহের রবিবারে সকাল ১০ টায় মাদক বিরোধী র‌্যালি অনুষ্ঠিত হবে এবং সামাজিক, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক, প্রশাসনিক ও সাংবাদিক সকল স্তরের মানুষকে উপস্থিত থাকার অনুরোধ করেন। রাণীশংকৈলে নেশা গ্রস্থ ছেলে মেয়েদের ভাল করার দায়িত্ব প্রশাসন দিয়ে যতটা সম্ভাব তার চেয়ে অভিভাবকদের সচেতন থেকে এর প্রতিকার করা অতি সহজ।