মেইন ম্যেনু

রাতে চলাচলে ব্যক্তিগত নিরাপত্তায় করণীয় ১০টি বিষয়

কাজের কারণে বা জরুরি প্রয়োজনে অনেক সময় আমাদেরকে রাতের বেলায় একস্থান থেকে অন্যস্থানে যাতায়াত করতে হয়। রাতে চলাচল দিনের মতো অতটা স্বস্তিদায়ক নয়। তাই একটু অসর্তকতা ডেকে আনতে পারে মারাত্মক বিপদ। তাই রাতে চলাচলের ক্ষেত্রে নিজেকে নিরাপদ রাখতে প্রয়োজন বাড়তি সতর্কতার।

এ জন্য বিশেষ ১০টি বিষয় লক্ষ্য রাখতে ন্যাশনাল হেল্প ডেস্ক-এর পক্ষ থেকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। সেগুলো হলো-

রাতে আলোকিত পথে চলাচলের চেষ্টা করুন। অন্ধকারাচ্ছন্ন পথ থেকে আলোকিত পথ অধিকতর নিরাপদ।
বাস স্ট্যান্ড, রেল স্টেশন, লঞ্চঘাটে গভীর রাতে এসে পৌঁছালে বাসায় ফেরার ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্ক থাকা জরুরি। রাতে ট্যাক্সি, সিএনজি অটোরিকশার পরিবর্তে বাস অধিকতর নিরাপদ। খুব বেশি তাড়া না থাকলে সকাল হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করাই ভালো।

রাতে অপরিচিত কোনো জায়গা খুঁজে বের করার ক্ষেত্রে অধিকতর সতর্ক থাকুন। স্থানীয় বাসিন্দারা আপনার আচরণে যেন আপনাকে সন্দেহ না করে।

রাতে চলাচলের সময় দামি মোবাইল, বেশি পরিমাণ টাকা-পয়সা, স্বর্ণালংকার কিংবা অন্য মূল্যবান সামগ্রী বিশেষ প্রয়োজন না হলে সঙ্গে না নেওয়াই ভালো।

নির্জন সড়কের পরিবর্তে ব্যস্ত সড়ক ব্যবহার করার চেষ্টা করুন সব সময়।

রাতে বাইরে যাওয়ার প্রয়োজন দেখা দিলে একা না গিয়ে কাউকে সাথে রাখা ভালো।

রাতে চলাচলের সময় বাইরে বিক্রিত খাবার যতটা সম্ভব পরিহার করাই উচিৎ।

চলার পথে কেউ সাহায্য চাইলে নিশ্চিত হতে চেষ্টা করুন সাহায্যপ্রার্থী কোনো প্রতারক দলের সদস্য কি না। প্রয়োজনে পুলিশের সাহায্য নিন।

যে এলাকায় যাচ্ছেন সে এলাকার থানার মোবাইল নম্বর নিজের মোবাইল ফোনে এবং মানিব্যাগে সংরক্ষণ করুন যেন প্রয়োজনে দ্রুত পুলিশের সাহায্য পেতে পারেন।

থানার মোবাইল নম্বর না থাকলে পুলিশের হেল্প লাইন ১০০ অথবা ৯৯৯ জরুরি সেবায় ফোন করে প্রয়োজনীয় পুলিশ সেবা নিন।

একটা বিষয় মনে রাখতে হবে যে নিজের নিরাপত্তা সর্বপ্রথম নিজেকেই নিশ্চিত করতে হবে। তাই রাতের বেলায় চলাচলের ক্ষেত্রে আপনার বাড়তি সতর্কতাই আপনাকে বিপদ থেকে নিরাপদ রাখবে সহজেই। তাই যেকোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে উপরিল্লেখিত দশটি বিষয় মানতে চেষ্টা করুন। খুব বেশি জরুরি কোনো কাজ না থাকলে রাত্রে বাসা থেকে বের না হওয়াটাই ভালো।