মেইন ম্যেনু

রাত পোহালেই তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচন

চলমান ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে দেশের ৪৮ জেলার ৬২০টি ইউপিতে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আগামীকাল শনিবার। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত একটানা চলবে এই ভোটগ্রহণ।

নির্বাচন কমিশন সুত্র জানায়, এরইমধ্যে এই নির্বাচনকে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। নির্বাচনী এলাকায় গতকাল বৃহস্পতিবার মাঠে নেমেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। এছাড়া শুক্রবার বিকেলের মধ্যে নির্বাচনী সামগ্রী সব কেন্দ্রে যাবে।

সুষ্ঠু ভোটের জন্য সঠিক অভিযোগ পেলে তা খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল অনিয়ম ও পক্ষপাতিত্বের অভিযোগে গাজীপুরে একজন এসপি ও দুইজন ওসিকে এবং গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীর ওসিকে প্রত্যাহারের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া গত বুধবার মধ্যরাত থেকে নির্বাচনী এলাকায় মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ভোটগ্রহণের আগের মধ্যরাত থেকে অর্থাৎ শুক্রবার দিনগত মধ্যরাত থেকে ভোটের দিন মধ্যরাত পর্যন্ত অটোরিকশা/ইজিবাইক, ট্যাক্সিক্যাব, মাইক্রোবাস, জিপ, পিকআপ, কার, বাস, ট্রাক ও টেম্পো চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

তবে রিটার্নিং কর্মকর্তার অনুমতি সাপেক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও তাদের নির্বাচনী এজেন্ট, দেশি-বিদেশি পর্যবেক্ষক ও অনুমোদিত সাংবাদিকদের ক্ষেত্রে তা শিথিল থাকবে। এ ছাড়া চিকিৎসা, ফায়ার সার্ভিস, বিদ্যুৎ, গ্যাস, ডাক, টেলিযোগাযোগ ইত্যাদি কাজে ব্যবহারের জন্য উল্লেখিত যানবাহন চলাচল নিষেধাজ্ঞার আওতামুক্ত থাকবে।

নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার বিষয়ে নির্বাচন কমিশনার মো. শাহনেওয়াজ বলেন, ‘ইউপি নির্বাচন একটা বিশাল নির্বাচন। তৃতীয় ধাপের ভোট হবে শনিবার। এই নির্বাচনে যাতে করে কোনো সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড না হয় এ বিষয়ে সজাগ রয়েছি। এ ছাড়া আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকেও কঠোর নির্দেশ দেওয়া রয়েছে।’

তিনি বলেন, আমরা সবাইকে আশ্বস্ত করতে চাই, গত দুই ধাপের চেয়ে শক্ত অবস্থানে থাকবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। আপনারা নির্বিঘ্নে, নির্ভয়ে এসে নিঃসংকোচে ভোট দিয়ে যান। ভোটকেন্দ্রে আসতে কেউ বাধা দিলেই ব্যবস্থা নেব।

কোনো দল বা বিশেষ ব্যক্তি বিবেচনায় না রেখে অনিয়মে জড়িত যেই হোক তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

এর আগে তৃতীয় ধাপে ৬৮৫টি ইউপির তালিকা করেছিল ইসি। প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোর সব প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিতে না পারায় রাঙ্গামাটি ও বান্দরবানের ৫৩ ইউপির ভোট ষষ্ঠ ধাপে নেওয়া হয়েছে। নানা জটিলতায় আরো ১২টি ইউপির ভোটও পরের ধাপে গেছে। তাই শনিবার ৬২০ ইউপিতে ভোট অনুষ্ঠিত হবে।

এ ধাপে চেয়ারম্যান প্রার্থী রয়েছে দুই হাজার ৬৭২ জন। সাধারণ সদস্য পদে ২০ হাজার ৯৪৩ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ছয় হাজার ২৯৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী রয়েছে।

এরইমধ্যে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের ২৫ জন, সাধারণ সদস্য পদে ১৭৪ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ৭৯ জন নির্বাচিত হয়েছেন। এসব ইউপিতে মোট ভোটার এক কোটি নয় লাখ ৮০ হাজার ৩৫৫ জন।