মেইন ম্যেনু

রানীশংকৈলে সরকারী জাগায় গড়ে উঠছে দোকানপাট, দেখার কি কেউ নেই ?

ঠাকুরগায়ের রানীশংকৈল উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন সরকারী জায়গায় অবাধে গড়ে উঠছে দোকান পাট। কিন্তু দেখার কি কেউ নেই? বিগত তত্তাবধায়ক সরকারের আমলে রানীশংকৈল উপজেলার প্রধান সড়কগুলোর আশে পাশে সরকারী জায়গা দখল করে থাকা বিভিন্ন অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছিল। বিশেষ করে উপজেলা কার্যালয়ের সন্নিকটে থাকা শিবদিঘী বাজার,থানা ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সামনের প্রাচীর সন্নিকটে থাকা দোকানপাট গুলো অবৈধ ভাবে স্থাপনার জন্য উচ্ছেদ করেছিল তৎকালীন সরকার। এরপর পৌরসভা কৃর্তক নির্মিত হলো পৌর মার্কেট রানীশংকৈল উপজেলায় ফিরে এসেছিলো একটি সন্দুর পরিবেশ। পরিচ্ছন্ন ও ফাকা হয়েছিল উপজেলা স্বা¯থ্য কমপ্লেক্স ও থানা প্রাচীর সামনের জায়গাটি।
অথচ এই সন্দুর পরিচ্ছন্ন পরিবেশটি হারিয়ে যাচ্ছে বর্তমান দলীয় সরকার আসার পর। যে যেমনে পারছে জায়গা দখল করে দোকান পার্ট নির্মাণ করছে। তবে প্রশাসনের দায়িত্বপ্রাপ্ত তওশীলদাররা লোক দেখানো বাধা সৃষ্টি করছে জায়গা দখলের মাঝে মধ্যে। কিন্তু পরবর্তীতে অজ্ঞাতভাবে বাধাকৃত সেই জায়গা দখল করে দোকান ঘর নির্মাণ হচ্ছে। সম্প্রতি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রাচীর সামনে জায়গাগুলো দখল হয়ে যাচ্ছে নির্মাণ হচ্ছে পাকা আধা পাকা দোকান ঘর।
এই দোকান ঘরগুলো নির্মাণ হওয়ার কারনে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি দুর থেকে চেনাই যায় না। অথচ প্রশাসনের দায়িত্ব শীল কর্তা বাবুরা নিরবতা পালন করছেন? বিশ্বস্ত সুত্রে জানা যায়, এই অবৈধভাবে দোকান ঘরগুলি নির্মাণের পিছনে প্রশাসনের লোকেরও যোগসাজস রয়েছে। তারা নাকি জায়গা ভাড়া বাবদ একটি মোটা অংকের কমিশন নেই? রানীশংকৈলের সচেতন মহল প্রশাসনের এমন অবহেলার উপর চরম ক্ষোভ জানিয়ে অবিলম্বে এই অবৈধ দোকানগুলি সরিয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সর সুস্থ পরিবেশ ফিরিয়ে আনার দাবি জানিয়েছেন।