মেইন ম্যেনু

রাম-লক্ষ্মণের বিরুদ্ধে মামলা!

ঘটনাটা হিন্দু ধর্মগ্রন্থ রামায়নের। সীতা হরণ, রাবন বধ এ নিয়েই এক পৌরানিক কাহিনী পুরো গ্রন্থজুড়ে। বাল্মীকির এই অমরসৃষ্টিতে কাহিনী বর্ণনার ফাঁকে ফাঁকে রয়েছে নানা উপদেশ। সেখানে রামের গুণকীর্তন রয়েছে প্রতিটি পরতে পরতে। গ্রন্থের শেষে রামকে অবতার হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে। রয়েছে ছোট ভাই লক্ষ্মণের বীরত্ব গাথা।

এখানে সীতা-রামের রোমান্টিক সম্পর্কও কম গুরুত্ব পায়নি। সীতাকে অপহরণের প্রতিশোধ নিতেই লঙ্কা আক্রমণ করেন রাম। যার জন্য এতোকিছু প্রজাদের মন রক্ষা করতে সামাজিক মর্যাদা ক্ষুণ্ণ হওয়ার ভয়ে সেই সীতাকেই ত্যাগ করেন রাম। আর মেনেও নেন সবাই।

কিন্তু কী অদ্ভুত! এই ‘অন্যায়ের’ প্রতিবাদ জানাতে রামচন্দ্র আর লক্ষ্মণের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন বিহারের সীতামারি জেলার এক ব্যক্তি! সোমবার সেই মামলার শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।

ঠাকুর চন্দন সিংহ নামে ওই আইনজীবীর অভিযোগ, সীতাকে কেন পরত্যাগ করেছিলেন রামচন্দ্র? প্রকৃত সত্য যাচাই না করেই রামচন্দ্র সীতাকে অপমান করেছেন। সেই কারণেই সীতামারি জেলার আদালতে মামলা দায়ের করেছেন তিনি। লক্ষ্মণের বিরুদ্ধে তার অভিযোগ, এই কাজে দাদাকে সাহায্যে করেছিলেন তিনি।