মেইন ম্যেনু

রিকশাচালক যেভাবে হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক

ভারতের মধ্যপ্রদেশের গোরখপুরের রামজানকি নগরের বাসিন্দা ৩৪ বছর বয়সী গঙ্গারাম রিকশা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন। তিনি এখন যোগ দেবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হিসেবে। গঙ্গারামের পরিবারে আছেন স্ত্রী, চার ছেলেমেয়ে আর বৃদ্ধ মা। অবসরে তিনি লোহালক্কড় নিয়ে কাজ করেন। তৈরি করেন নানা জিনিস, যা মানুষের কাজে লাগে।

সম্প্রতি তার উদ্ভাবনী শক্তি দেখে অভিভূত হন ভারতের বিজ্ঞানীরা। তার উদ্ভাবিত জিনিসের তালিকায় রয়েছে এমন ধরনের ট্রাক্টর, যা চালাতে জ্বালানির দরকার হয় না। তিনি এমন ধরনের সাইকেল বানাতে সক্ষম, যা পানির ওপরেও চলবে। মূলত তিনি গ্রামের মানুষ এবং চাষিদের কাজের ক্ষেত্রে সুবিধা হয় এমন জিনিস বানাতে আগ্রহী। এরই মধ্যে অন্ধ্র প্রদেশের রাউরকেলার বিজ্ঞানীরা তার গ্রামে গিয়ে তার উদ্ভাবিত জিনিস দেখে আসার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

সরকারি তরফে তাকে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়, তার উদ্ভাবিত জিনিস নিয়ে শিগগিরই প্রকল্পের কাজ শুরু হবে। বেঙ্গালুরুর ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স তাকে রয়্যালটি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়। তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হিসেবে যোগ দেওয়ার অনুরোধ জানানো হয়। এই প্রস্তাবে গঙ্গারাম রাজি হয়েছেন। তাকে একটি নিয়োগপত্র দেওয়া হয়েছে। এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। শিগগিরই গঙ্গারামকে বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হিসেবে দেখা যাবে। তিনি পড়াবেন যন্ত্রকৌশল।