মেইন ম্যেনু

রিজভী উধাও !

গ্রেপ্তার এড়াতে তিনদিন গুলশানে দলীয় চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে ছিলেন বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী।

সেখান থেকে সোমবার চুপিসারে বেরিয়ে যান তিনি। এরপর থেকে খোঁজ মিলছে না দলের এই সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিবের। রিজভীর ঘনিষ্ঠজনদের এ বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলেও কেউ তথ্য দিতে পারেননি।

তিনদিন রিজভীর সঙ্গে ওই কার্যালয়ে অবস্থান করা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘তিনি (রিজভী আহমেদ) কোথায় আছেন আমরা কিছুই জানি না। তার সঙ্গে কোনো প্রকার যোগাযোগই নেই।’

রিজভীর অবস্থান সম্পর্কে জানতে চাইলে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘রিজভী অসুস্থ। তিনি এখন অনেক মামলা ও হামলার মুখে। এ কারণে তিনি গ্রেপ্তার এড়িয়ে চলছেন। তার অবস্থান আমার জানা নেই।’

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার সকালে সংবাদ সম্মেলন করতে গিয়ে গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে প্রবেশের পর কার্যালয়ের আশপাশ এলাকায় আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যরা অবস্থান নেয়। এতে গ্রেপ্তার হওয়ার আশঙ্কায় আর বের হননি তিনি।

তবে রোববার ঢাকার এক নম্বর মহানগর বিশেষ ট্রাইব্যুনালে রিজভী নিরাপত্তা চেয়ে আবেদন করার পর তার আইনজীবী অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া জানিয়েছিলেন, তিনি (রিজভী) সোমবার আদালতে আত্মসমর্পন করে জামিন আবেদন করবেন। কিন্তু সোমবার আদালতে না গিয়ে চুপিসারে কার্যালয় থেকে বেরিয়ে যান। এরপর থেকে তার খোঁজ নেই। তার ব্যক্তিগত ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।

বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে দায়ের করা একটি মামলায় গত সপ্তাহে রিজভীসহ নয়জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

রিজভী ছাড়াও খালেদা জিয়ার বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান ওরফে শিমুল বিশ্বাস, প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান, প্রাক্তন সংসদ সদস্য সৈয়দা আশিফা আশরাফী পাপিয়া, হাবিবুন্নবী খান সোহেল, আজিজুল বারী হেলালের বিরুদ্ধে পরোয়ানা রয়েছে।