মেইন ম্যেনু

রিসা হত্যা : সহপাঠীরা আজও রাস্তায়

সুরাইয়া আক্তার রিসার খুনি ওবায়দুলকে গ্রেপ্তারের দাবিতে আজও উত্তাল উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজ।

মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিনের মতো ওই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকরা বিক্ষোভ করছেন। এদিন দুপুরে তারা কাকরাইল স্কুলের সামনে রাস্তা অবরোধ করলে আশপাশের রাস্তায় তীব্র যানজট দেখা দেয়। পুলিশ তাদের সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে।

ওই স্কুলের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী রিসা গত রোববার সকালে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। এর আগে গত বুধবার রিসাকে ছুরিকাঘাত করে বখাটে ওবায়দুল। আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে আইসিইউতে ভর্তি ছিল সে।

মঙ্গলবার দুপুর ১২টার পর স্কুলের শিক্ষার্থীরা রাস্তার সামনে দাঁড়িয়ে যায়। এ সময় তাদের হাতে প্ল্যাকার্ডে হত্যাকারীকে গ্রেপ্তারসহ নানা স্লোগান লেখা ছিল। একসময় তারা রাস্তা অবরোধ করে। এ সময় ওই রাস্তা দিয়ে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

শিক্ষক রায়হানুল হক বলেন, ‘রিসা মেধাবী ছাত্রী ছিল। তার এভাবে চলে যাওয়া মেনে নেওয়া যায় না। এত দিনেও কেন খুনি গ্রেপ্তার হচ্ছে না?’

নবম শ্রেণির ছাত্র সোহেল বলেন, ‘আমরা অন্য কোনো কারণে নয়, সহপাঠীর হত্যার বিচার চেয়ে বিক্ষোভ করছি। খুনি গ্রেপ্তার না হওয়া পর্যন্ত এ আন্দোলন চালিয়ে যাব।’

রমনা জোনের উপকমিশনার (ডিসি) মারুফ হোসেন সরদার সাংবাদিকদের বলেন, ‘ওবায়দুলের পুরো পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে। যেকোনো সময় সে গ্রেপ্তার হতে পারে। তাকে গ্রেপ্তারে পুরিশের অভিযান অব্যাহত আছে।’