মেইন ম্যেনু

রুপসপুরে শোকের ছাঁয়া

মাহমুদ এইচ খান, কমলগঞ্জ থেকে ফিরে: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার যাত্রীবাহী বাস ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত একই গ্রামের আটজনের গ্রামের বাড়ি মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার মুন্সিবাজার ইউনিয়নের রুপসপুরে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

সরেজমিন দেখা যায় মর্মাহত গ্রামবাসী চিরচেনা সেই নিহতদের দাফন সম্পন্ন করে শোকে ভাসছেন। বন্ধু কিংবা প্রতিবেশিরা নিহতদের কথা স্মরণ করে কান্নায় ভেঙ্গে পড়ছেন অনেকে। প্রবীন থেকে শুরু করে সবাই হতভম্ব হয়ে পড়েছেন এমন ঘটনায়। একই গ্রামের আটজন একসাথে মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনায় প্রান হারাতে পারে এমনটা যেন মানতে পারছেন না এলাকাবাসী।

নিহতদের প্রতিবেশি আফরোজ আলি বলেন- আমরা ভাবতে এভাবে এতটি প্রান চলে যাবে তাও একই পরিবারের ৫জন। ভাবতে গেলে কেমনজানি হতভম্ব হয়ে যাই।

প্রবীন মুরব্বি মাসুক মাষ্টার বলেন বিয়ে করতে গিয়ে একসাতে আটি প্রান হারানোর ঘটনা আমি জীবনের প্রথম শুনেছি। এই ঘটনার জন্য দায়ী হচ্ছেন অযোগ্য চালকরা আর যাতে এমন ঘটনা দেখতে না হয় আমাদের।

উল্লেখ, শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে বিয়ের অনুষ্ঠানে কমলগঞ্জ থেকে তারা ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিয়েতে যাওয়ার পথে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বিজয়নগর উপজেলার শশই এলাকায় সিলেটগামী এনা পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসেরর সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা অপর একটি মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই বর সহ মাইক্রোবাসের আট আরোহী মারা যান। এ ঘটনায় আহত হন আরো চারজন।