মেইন ম্যেনু

রূপচর্চার যে কৌশলগুলো প্রত্যেক নারীর জানা উচিত

নারীরা প্রসাধনীর ওপর অনেক বেশি নির্ভরশীল। ত্বকের সমস্যা, চুলের সমস্যা, নখের সমস্যা কিংবা অন্য যেকোনো সমস্যা প্রসাধনী দিয়ে সমাধান করার চেষ্টা করেন। প্রসাধনী ছাড়াও প্রাকৃতিক কিছু উপাদান দিয়ে অনেক সমস্যা সমাধান করা সম্ভব। ছোট ছোট এই কৌশলগুলো ত্বক ও চুলের অনেক বড় সমস্যার সমাধান করে দিতে পারে।

১। টুথপেস্ট

নারী পুরুষ উভয়ের অন্যতম একটি সমস্যা হলো ব্রণ। কিশোর কিশোরীদের এই সমস্যা বেশি দেখা দেয়। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে অল্প পরিমাণ টুথপেস্ট ব্রণের স্থানে লাগিয়ে রাখুন। পরের দিন সকালে পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি কয়েক দিন করুন। তবে সেনসিটিভ ত্বকে টুথপেস্ট ব্যবহার না করাই ভালো। অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করতে পারেন। অ্যালোভেরা পাতা থেকে জেল বের করে নিন। এই জেল ব্রণের চারপাশে লাগান। এটি দিনে দুই তিনবার করুন। এর অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি ইনফ্লামেটরি উপাদান ব্রণ সারিয়ে তুলতে সাহায্য করে।

২। সুগার স্ক্রাব

ঠোঁটের রুক্ষতা, শুষ্কতা দূর করে গোলাপি আভা আনতে সুগার স্ক্রাব বেশ কার্যকর। দুই চা চামচ চিনি এবং এক চা চামচ মধু একসাথে মিশিয়ে নিন। এটি ঠোঁটে ম্যাসাজ করে লাগান। এটি ঠোঁট থেকে মৃত কোষ দূর করতে সাহায্য করে। এরপর কুসুম গরম পানি দিয়ে ঠোঁট ধুয়ে ফেলুন। একটি ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন ঠোঁটে। নারকেল তেল ব্যবহার করতে পারেন ময়েশ্চারাইজার হিসেবে।

৩। বেকিং সোডা

হলুদ দাঁত সাদা করতে বেকিং সোডা বেশ কার্যকর। টুথপেস্টের সাথে ১/৪ চা চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এটি টুথব্রাশে লাগিয়ে দাঁত ব্রাশ করুন। এটি দাঁতে হলদেটে ভাব দূর করে দাঁত সাদা করে তোলে। এটি দিয়ে দাঁত ব্রাশ করার পর খাবার বা পানীয় পান করা থেকে বিরত থাকুন।

৪। বেবি পাউডার

মাথার তালুর তেল চিটচিটে ভাব দূর করতে বেবি পাউডার ব্যবহার করতে পারেন। শ্যাম্পু করার সময় পাচ্ছেন না, চুলে ব্যবহার করতে পারেন বেবি পাউডার। এই বেবি পাউডার ড্রাই শ্যাম্পুর মতো কাজ করবে।

৫। ঠান্ডা চামচ

চোখের নিচের ফোলাভাব দূর করতে সাহায্য করবে ঠান্ডা চামচ। কিছু চামচ ফ্রিজে ১৫ মিনিট রেখে দিন। ১৫ মিনিট পর চামচ চোখের নিচে রেখে দিন। চামচের উপরের অংশটি চোখের নিচে রাখুন এক মিনিট। এভাবে ফোলা ভাব দূর হয়ে যাবে। এছাড়া ব্যবহৃত টি ব্যাগ কাজে আসতে পারে এক্ষেত্রে। এগুলো ফ্রিজে রেখে দিন। ঠাণ্ডা হলে চোখের নিচে ব্যবহার করুন। টি ব্যাগ চোখের নিচের কালি এবং ফোলাভাব দূর করতে সাহায্য করবে।

৬। ডিমের সাদা অংশ

তৈলাক্ত ত্বকের জন্য ডিমের সাদা অংশ অনেক উপকারী। একটি ডিমের সাদা অংশ ভালো করে ফেটে নিন। এটি ত্বকে ব্যবহার করুন। কিছুক্ষণ পর শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে দুইবার ব্যবহার করুন। ডিমের সাদা অংশের সাথে লেবুর রস মিশিয়ে নিতে পারেন। টমেটোর রসও ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন। এটি ত্বকে লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের অতিরিক্ত তেল দূর হয়ে যাবে।

৭। নারকেল তেল এবং লেবুর রস

খুশকি সমস্যা দূর করতে সাহায্য করবে লেবুর রস এবং নারকেল তেল। ১/৪ কাপ কুসুম গরম নারকেল তেলের সাথে অর্ধেকটা লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি মাথার তালুতে ম্যাসাজ করে লাগান। এটি সপ্তাহে কয়েকবার ব্যবহার করুন।

সূত্র: টপ টেন হোম রিমিডিস