মেইন ম্যেনু

পারাবতে যান্ত্রিক ত্রুটি

রেলের শিডিউল বিপর্যয়, ভোগান্তি চরমে

পবিত্র ঈদুল আজহার আর মাত্র একদিন বাকি। শেষ মুহূর্তে স্বজনদের সঙ্গে ঈদ করতে বাড়ি ফেরার তাড়ায় কমলাপুর রেলস্টেশনে ভিড় করছে হাজার হাজার যাত্রী। কিন্তু বিমানবন্দর স্টেশনে সিলেটগামী পারাবত এক্সপ্রেসের যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেয়ায় মারাত্মক শিডিউল বিপর্যয়ে পড়েছে দেশের বিভিন্ন গন্তব্যের উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়ার অপেক্ষায় থাকা ট্রেনগুলো। এই শিডিউল বিপর্যয় আজ সারা দিনেও কেটে ওঠা সম্ভব হবে কি-না তা নিয়ে সন্দিহান রেলওয়ে কর্মকর্তারা।

রবিবার সকালে কমলাপুর স্টেশনে গিয়ে দেখা যায়, এই স্টেশনের ৯টি প্লাটফর্মের ৭টিতেই ট্রেন যাত্রী বোঝাই হয়ে দাঁড়িয়ে আছে। কিন্তু বিমানবন্দরে লাইন ক্লিয়ার না হওয়ায় ছাড়তে পারছে না। এছাড়াও আরও কয়েক হাজার যাত্রী কমলাপুরে অপেক্ষা করছে বিভিন্ন গন্তব্যে যাওয়ার জন্য। ট্রেনের সিডিউল বিপর্যয়ে পড়ার কারণে যাত্রীরা অবর্ণনীয় ভোগান্তিতে পড়েছে। কমলাপুর রেলস্টেশন এখন জনসমুদ্রে পরিণত হয়েছে।

ভ্যাকুয়াম বিকল হওয়া পারবত এক্সপ্রেস ট্রেনটি প্রায় আড়াই ঘণ্টা পরে বিমানবন্দর স্টেশন থেকে ছেড়ে গেলে ঢাকা থেকে ট্রেন চলাচল শুরু হয়। আর এরপরেই কমলাপুর স্টেশনে জটলাগা ট্রেনগুলো ছাড়তে শুরু করে। এতে প্রতিটি ট্রেন কমলাপুর স্টেশন ছেড়ে যায় দুই থেকে তিন ঘণ্টা পর।

কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে সকাল ৯টার দিকে ছাড়ার জন্য অপেক্ষারত ধুমকেতু এক্সপ্রেস, মহানগর প্রভাতী, মহুয়া এক্সপ্রেস, কর্ণফুলি এক্সপ্রেস ট্রেনগুলি ছেড়ে গেলেও দেওয়ানগঞ্জ ঈদ স্পেশাল, রংপুর এক্সপ্রেস, জয়দেবপুর এক্সপ্রেস এখনো কমলাপুর স্টেশন থেকে ছেড়ে যেতে পারেনি।

এদিকে একতা এক্সপ্রেস ট্রেনটি দিনাজপুরের উদ্দেশে ১০টায় ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও বেলা ১১টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কমলাপুর স্টেশন ছেড়ে যেতে পারেনি।

ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয়ের কারণ জানতে চাইলে স্টেশন ম্যানেজার সিতাংশু চক্রবতী বলেন, ‘বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশনে ঢাকা থেকে সিলেটগামী পারাবত এক্সপ্রেসের ভ্যাকুয়াম নষ্ট হয়ে যাওয়ায় এই শিডিউল বিপর্যয় ঘটে।’

সিতাংশু বলেন, ‘বিমানবন্দর লাইন ব্লক হয়ে যাওয়ায় তিস্তা তেজগাঁওয়ে ও সোনারবাংলা বিমানবন্দরে আটকে পড়ে। এছাড়া আরও সাতটি ট্রেন কমলাপুরে নির্ধারিত সময়ে ছেড়ে যেতে পারেনি।’

গত ২ সেপ্টেম্বর থেকে ইন্দোনেশিয়ান নতুন কোচ নিয়ে চলাচল শুরু করে পারাবত। এই প্রথম ট্রেনটি বিকল হয়ে প্রায় আড়াই ঘণ্টা দেরি করে বিমানবন্দর ছাড়লো।

এদিকে, লাইন ব্লক হয়ে যাওয়ায় কমলাপুরে যাত্রী ভিড় বেড়ে যায়। সব প্লাটফর্মে ট্রেন ছেড়ে যাওয়ার অপেক্ষা করতে থাকে যাত্রীরা। এতে চরম ভোগান্তিতে পরে ঘরমুখী মানুষেরা।