মেইন ম্যেনু

রোজা শেষে ইফতারে- সতেজ থাকুন নানান শরবতে

গরমের এই দিনে রোজা শেষে ইফতারে চাই প্রাণ জুড়ানো একগ্লাস ঠাণ্ডা শরবত। শরীরের পানিস্বল্পতা দূর করতে শরবতের তুলনা হয় না। তাই বাজারের বোতলজাত জুসের বদলে ঘরে তৈরি করে নিতে পারেন পছন্দের শরবত। কোনো রকম স্বাস্থ্যঝুঁকি ছাড়াই এসব শরবত আপনাকে করবে প্রাণবন্ত। মাসজুড়ে রোজা থেকেও সতেজ থাকতে একেক দিন বেছে নিতে পারেন পছন্দের একেকটি শরবত।

লেবুর শরবত

যা যা লাগবে

কাগজি লেবু মাঝারি আকারের ১টি, চিনি পরিমাণমতো, বিট লবণ সামান্য, পানি দেড় কাপ, বরফ কুচি চার টুকরো।

যেভাবে করবেন

লেবুর রস, চিনি, বিট লবণ সাথে পানির সঙ্গে ভালোভাবে গুলে নিতে হবে। এবার শরবতটি ফ্রিজে রেখে ঠাণ্ডা করে নিতে পারেন। সময় কম থাকলে বরফ কুচি দিয়ে পরিবেশন করতে ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা লেবুর শরবত। ইফতারে তৃষ্ণার্ত মনকে পরিপূর্ণ তৃপ্ত করবে টক-মিষ্টি স্বাদের এক গ্লাস লেবুর শরবত।

শসার শরবত

যা যা লাগবে

শসা ২৫০ গ্রাম, ধনেপাতা কুচি আধা টেবিল চামচ, বিট লবণ সামান্য, চিনি সামান্য, কাঁচা মরিচ ১ টি এবং পানি সামান্য।

যেভাবে করবেন

শসার খোসা ছাড়িয়ে এবং বীজ ফেলে কুচি করে নিন। এরপর সব উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে ব্লেন্ড করে নিতে হবে। এবার সুদৃশ্য একটা শরবতের গ্লাসে বরফ কুচি দিয়ে পরিবেশন করুন শসার শরবত।

আমের শরবত

যা যা লাগবে

পাকা আম কুচি এককাপ, চিনি স্বাদমতো, পানি আধাকাপ, লবণ এক চিমটি, পরিমাণমতো বরফ কুচি।

যেভাবে করবেন

বরফকুচি বাদে সব উপকরণ একসঙ্গে ভালো করে ব্লেন্ড করে নিন। এবার বরফ কুচি দিয়ে পরিবেশন করুন আমের শরবত।

তরমুজের শরবত

যা যা লাগবে

তরমুজ কুচি দুইকাপ, চিনি ২ টেবিল চামচ, বিট লবণ আধা চা চামচ, পাতি লেবুর রস ২ চা চামচ।

যেভাবে করবেন

তরমুজ কুচিসহ সব উপকরণ মিশিয়ে ব্লেন্ড করে ফ্রিজে রেখে দিন আধা ঘণ্টা। প্রয়োজনীয় ঠাণ্ডা হলে নামিয়ে এনে পরিবেশন করুন রঙিন একগ্লাস ঠাণ্ডা তরমুজ শরবত।

আনারসের শরবত

যা যা লাগবে

আনারস কুচি ১ কাপ, বিট লবণ আধা চা চামচ, চিনি ২ চা চামচ, গোলমরিচের গুঁড়া ২ চা চামচ, পানি পরিমাণমতো।

যেভাবে করবেন

আনারস কুচির সঙ্গে বিট লবণ, চিনি, গোল মরিচের গুঁড়া ও পানি একসঙ্গে ভালো করে মিশিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। ব্যস, তৈরি হয়ে গেল আনারসের শরবত। এবার সুন্দর একটি গ্লাসে ঢেলে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।