মেইন ম্যেনু

রোজিনার শুরু ওয়াসিম, শেষ ফেরদৌস

ঢাকাই সিনেমার সাড়া জাগানো চিত্রনায়িকা রোজিনা। সিনেমা জগতে তার আগমনটা হুট করে হলেও তা ছিলো অনেক নাটকীয়তায় ভরপুর।

রোজিনা জানন, প্রথমে দুই দুইটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েও সেগুলোতে কাজ করা হয়নি আমার। এরপর ১৯৭৭ সালে এফ কবীর চৌধুরীর ‘রাজমহল’ ছবিতে চিত্রনায়ক ওয়াসিমের বিপরীতে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হই। শুটিং শেষ হবার পর ১৯৭৮ সালে ছবিটি মুক্তি পায়। সেটিই ছিলো আমার প্রথম ছবি।

সেই ১৯৭৭ সাল থেকে শুরু করে সর্বশেষ ২০০৪ সাল পর্যন্ত অন্তত ২৮০টিরও বেশি ছবিতে কাজ করেছেন জনপ্রিয় এ নায়িকা। তার সর্বশেষ অভিনীত কাজী নজরুল ইসলামে গল্প অবলম্বনে নির্মিত ‘রাক্ষুসি’। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করেন এ প্রজন্মের চিত্রনায়ক ফেরদৌস।

আমজাদ হোসেন পরিচালিত কসাই ছবিতে অভিনয়ের জন্য সর্বপ্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান রোজিনা। এরপর মতিন রহমান পরিচালিত জীবনধারা ও কবীর আনোয়ার পরিচালিত দিনকাল ছবিতে অভিনয়ের জন্যও তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন।

এছাড়াও বাচসাস পুরস্কারও পেয়েছেন তিনি। সেই সাথে দেশের বাইরে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের যৌথ প্রযোজনায় ‘হাম সে হায় জামানাত’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য ১৯৮৬ সালে পাকিস্তান থেকে নিগার অ্যাওয়ার্ড পান এ গুণী অভিনেত্রী। এ ছবিতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন পাকিস্তানের জনপ্রিয় নায়ক নাদিম।

তাছাড়াও তিনি নেপাল, শ্রীলঙ্কার সাথেও কো-প্রোডাকশনের ছবিতে অভিনয় করে বেশ সুনাম কুড়িয়েছেন। ১৯৮৪ সালে বাংলাদেশ-ভারতের যৌথ প্রযোজনার ছবি ‘অবিচার’-এ তিনি অভিনয় করেন সেসময়ের বোম্বের সুপারস্টার মিঠুন চক্রবর্তীর বিপরীতে।