মেইন ম্যেনু

রোনালদোতে রক্ষা রিয়ালের

স্প্যানিশ লা লিগায় চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার বিপক্ষে মর্যাদার ‘এল ক্লাসিকোতে’ ঘরের মাঠে বড় ব্যবধানে হেরেছে রিয়াল। সেই ক্ষত শুকাতে না শুকাতেই আবারো পয়েন্ট খোয়াতে যাচ্ছিল রাফায়েল বেনিতেজের দল। উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্বের ম্যাচে বুধবার রাতে রিয়ালকে ভড়কে দিয়েছিল ইউক্রেনের ক্লাব শাখতার দনেৎস্ক। ৭০ মিনিটের মধ্যে রিয়াল ৪-০ গোলে লিড নিলেও ৭৭, ৮৩ ও ৮৮ মিনিটে গোল করে রিয়ালকে চেপে ধরেছিল স্বাগতিকরা।

কিন্তু শেষ পর্যন্ত ড্র কিংবা হারে পয়েন্ট খোয়াতে হয়নি লস ব্লাঙ্কোসদের। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর জোড়া গোল, লুকা মদ্রিচ ও দানিয়েল কারভাহালের গোলে ৪-৩ গোলের ব্যবধানে জয় পেয়েছে মাদ্রিদিস্তারা। রিয়ালের চারটি গোলের দুটি নিজে করার পাশাপাশি অন্য দুটি গোলেও ছিল রোনালদোর প্রত্যক্ষ ভূমিকা। তার বাড়িয়ে দেওয়া বল থেকেই গোল করেছেন মদ্রিচ ও কারভাহাল।

একই গ্রুপের ম্যাচে মালমোকে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ফ্রান্সের ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেই।

এ জয়ের ফলে ৫ ম্যাচ থেকে ৪টি জয় ও ১টি ড্রয়ে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে ‘এ’ গ্রুপের পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে রয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। ৩ জয়, ১ ড্র আর ১ হারে ১০ পয়েন্ট নিয়ে প্যাসির সেইন্ট জার্মেই রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে।

বুধবার ইউক্রেনের মাঠ অ্যারেনা এলভিভে ম্যাচের ১৮ মিনিটেই এগিয়ে যায় রিয়াল। গোল খরায় থাকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ডি বক্সের মধ্য থেকে দারুণ হেডে বল জালে জড়ান। তাকে গোলে সহায়তা করেন গ্যারেথ বেল। রোনালদোর গোলে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকেই সাজঘরে ফেরে সফরকারীরা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই (৫০ মিনিটে) ব্যবধান দ্বিগুণ করেন লুকা মদ্রিচ। তাকে গোলে সহায়তা করেন রোনালদো। এর ঠিক দুই মিনিটের মাথায় (৫২ মিনিটে) দানিয়েল কারভাহাল গোল করলে রিয়াল এগিয়ে যায় ৩-০ গোলে। কারভাহালের গোলেও ছিল রোনালদোর সহায়তা। ৭০ মিনিটে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো নিজের দ্বিতীয় গোল করলে রিয়াল এগিয়ে যায় ৪-০ গোলে।

৭০ মিনিটের মধ্যে ৪-০ গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর কিছুটা ছন্দপতন ঘটে রিয়ালের। আর সংবিত ফিরে পায় শাখতার। ৭৭ থেকে ৮৮ মিনিটের মধ্যে তারা তিন-তিনটি গোল শোধ দিয়ে স্বাগতিক দর্শকদের উল্লাসের উপলক্ষ্য এনে দেয়। ৭৭ মিনিটে ডি বক্সের মধ্যে ফাউল করেন রিয়ালের কাসেমিরো। পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। আলেক্স টেক্সেইরা পেনাল্টি থেকে গোল করে ব্যবধান কমান (৪-১)। ৮৩ মিনিটে দেনতিনহোর গোলে ব্যবধান আরো কমে আসে (৪-২)। ৮৮ মিনিটে টেক্সেইরা নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করলে স্বাগতিক দর্শকরা পয়েন্ট পাওয়ার স্বপ্ন দেখতে শুরু করে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেটি আর সম্ভব হয়নি। পূর্ণ তিন পয়েন্ট নিয়েই মাঠ ছাড়ে রিয়াল মাদ্রিদ।