মেইন ম্যেনু

রোববার থেকে শাহজালালের নিরাপত্তার দায়িত্বে ব্রিটিশ কোম্পানি

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিরাপত্তার দায়িত্বভার আগামী ২৬ মার্চ থেকে গ্রহণ করার কথা থাকলেও আগামীকাল রোববার থেকে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবে যুক্তরাজ্যভিত্তিক ‘রেডলাইন অ্যান্ড কন্ট্রোল রিস্কস’ কোম্পানি।

শনিবার ‘রেডলাইন অ্যান্ড কন্ট্রোল রিস্কস’ নিরাপত্তা কোম্পানির সঙ্গে এ সংক্রান্ত এক সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর করে বাংলাদেশ। সিভিল অ্যাভিয়েশন সূত্রে এ সব তথ্য জানা গেছে।

এর আগে শনিবার বিমানমন্ত্রীর নেতৃত্বে সরকারের উচ্চপর্যায়ের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকে এই প্রস্তাবনা উত্থাপন করা হয়। কমিটি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেয়ার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এর অনুমোদন নেয়া হয়।

সিভিল অ্যাভিয়েশন সূত্র জানায়, প্রতিষ্ঠানটি বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থাপনায় তদারকি, স্ক্রিনিং ব্যবস্থা পরিচালনা এবং জনবল প্রশিক্ষণে যুক্ত থাকবে। বেবিচকের (বাংলাদেশ সিভিল অ্যাভিয়েশন অর্থরিটি) পক্ষ থেকেও সে ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়। আর এর মধ্য দিয়েই বিমানবন্দরের নিরাপত্তার দেখভালের দায়িত্ব যাচ্ছে বিদেশি কোম্পানির হাতে।

বিমান মন্ত্রণালয় ও বেবিচক সূত্রে জানা গেছে, ইতোমধ্যে ব্রিটিশ কোম্পানি রেডলাইন তার জনবল এবং নিরাপত্তা কাজে ব্যবহৃত প্রয়োজনীয় সরঞ্জামাদির চালান ঢাকায় এসে পৌঁছেছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ঢাকা থেকে সরাসরি পণ্য পরিবহনে যুক্তরাজ্যের সাময়িক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার ও বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ঢাকা-লন্ডন রুটকে ঝুঁকিমুক্ত রাখতে সরকার শাহজালালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এমন পদক্ষেপ নিয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৮ মার্চ নিরাপত্তার ঘাটতির অজুহাতে ঢাকা থেকে সরাসরি কার্গো বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করে যুক্তরাজ্য। একই দিন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দেয়া এক চিঠিতে জানিয়েছেন, ৩১ মার্চ দুদেশের সম্মত কর্মপরিকল্পনা অনুযায়ী নিরাপত্তা জোরদারের কাজ শুরু না হলে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের যুক্তরাজ্যগামী সরাসরি ফ্লাইট নিষেধাজ্ঞায় পড়তে পারে। যুক্তরাজ্যের কঠোর পদক্ষেপের পর নড়েচড়ে বসে বাংলাদেশ সরকার।