মেইন ম্যেনু

‘রোহিঙ্গাদের প্রতি মিয়ানমারের আচরণ গ্রহনযোগ্য নয়’

কানাডার পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের প্রতি দেশটির সরকারের আচরণকে অগ্রহনযোগ্য অভিহিত করে তার বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে।

কানাডার পররাষ্ট্র ও মানবাধিকার মন্ত্রীর পার্লামেন্টারি সেক্রেটারি দিপক ওভরাই সম্প্রতি হাউজ অব কমন্সে দেওয়া এক বিবৃতিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মিয়ানমার সরকারকে জানিয়ে দেওয়া উচিত যে রোহিঙ্গাদের প্রতি তাদের আচরণ মোটেও গ্রহনযোগ্য নয়। একই সঙ্গে মানবপাচারকারীদেরও শাস্তি পাওয়া উচিত।

প্রসঙ্গত, পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সমুদ্রপথে ভাসমান আবস্থায় বিভিন্ন দেশে আশ্রয় নেওয়ার চেষ্টার ঘটনায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মধ্যে কানাডাই প্রথম মিয়ানমারকে অভিযুক্ত করে জাতীয় সংসদে বিবৃতি দিয়েছে।

সরকারের সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বিপুল সংখ্যক রোহিঙ্গার সমুদ্রপথে বিভিন্ন দেশে আশ্রয়ের চেষ্টার ঘটনা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের নজরে আসার পর পরই কানাডায় বাংলাদেশ হাই কমিশনার কামরুল আহসান রোহিঙ্গা ইস্যূতে বাংলাদেশ সরকারের অবস্থান কানাডা সরকারের কাছে ব্যাখ্যা করেন। তিনি রোহিঙ্গা ইস্যূর পূর্বাপর ইতিহাসসহ ঘটনাপ্রবাহ কানাডা সরকারের কাছে ব্যাখ্যা করেন। হাই কমিশনার কানাডার বেশ কয়েকজন সংসদ সদস্যকেও এ ব্যাপারে অবহিত করেছেন বলে জানা যায়।

পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের পার্লামেন্টারি সেক্রেটারি দিপক ওভরাই বিবৃতিতে বলেন, “নিপীড়ন, ভয়াবহ অর্থনৈতিক অনিশ্চয়তা এবং নিরাপত্তাহীনতার কারণে নিজ দেশ থেকে মানুষের পালিয়ে আসার ভয়াবহ ঘটনা আমরা সাম্প্রতিক সময়ে প্রত্যক্ষ করেছি। আমরা লক্ষ্য করেছি একটু নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য মানুষ কতোটা মরিয়া হয়ে ওঠে।”

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, মানব পাচারকারীদের অপতৎপরতা এই পরিস্থিতেকে আরও ভয়াবহ করে তুলেছে যা কোনো মানুষের জীবনের জন্য কল্পনাতীত। তিনি বলেন, মিয়ানমার ও আফ্রিকা থেকে পালিয়ে আসা নাগরিকদের নৌকায় মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনা কয়েকটি দৃষ্টান্ত মাত্র। আরও প্রাণহানি ঘটবার আগেই আমাদের এই ব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।