মেইন ম্যেনু

রোহিঙ্গা শিশুদেরও গ্রেপ্তার করেছে মিয়ানমার পুলিশ

গত বছর মিয়ানমারের মংড়ুর একটি পুলিশ চৌকিতে হামলার ঘটনায় বিদ্রোহীদের সঙ্গে যোগসাজশের অভিযোগে পুলিশ গণহারে যেসব রোহিঙ্গা পুরুষকে গ্রেপ্তার করেছে তাদের মধ্যে ১০ বছরের শিশুও রয়েছে। পুলিশের কাছ থেকে পাওয়া এক নথির বরাত দিয়ে শুক্রবার বার্তা সংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

গত বছরের ৯ অক্টোবর মংড়ুর একটি পুলিশ চৌকিতে হামলা চালায় বিদ্রোহীরা। এ ঘটনার পর রোহিঙ্গাদের ওপর ব্যাপক দমন-পীড়ন চালাতে শুরু করে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী।

রয়টার্স জানিয়েছে, গত ৭ মার্চের তারিখ দেওয়া পুলিশের কিছু নথি তাদের কাছে এসেছে। এতে দেখা গেছে, বিদ্রোহীদের সঙ্গে যোগসাজশের অভিযোগে ওই মাসে ৪২৩ জন রোহিঙ্গাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে উপনিবেশিক আমলের বেআইনি কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ততা অ্যাক্টে মামলা করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতদের গড় বয়স ৩৪। তাদের মধ্যে সর্বনিম্ম বয়স হচ্ছে ১০ বছর আর সর্বোচ্চ ৭৫ বছর। এদের মধ্যে ১০ বছর বয়সী ১৩ শিশু রয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে কয়েকটি শিশু বিদ্রোহীদের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ স্বীকার করেছে। তাদেরকে বয়স্ক সন্দেহভাজনদের থেকে পৃথক করে রাখা হয়েছে।

সরকারের এক মুখপাত্র শিশুদের গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তবে তিনি দাবি করেছেন, কর্তৃপক্ষ আইন-কানুন মেনেই কাজ করছে। বর্তমানে পাঁচটি শিশু কারাগারে আছে বলে দাবি করেছেন তিনি।

মংড়ুর পুলিশ ক্যাপ্টেন থন শ বলেছেন, ‘হামলাকারীদের সঙ্গে যাদের সম্পৃক্ততা আছে, শিশুই হোক আর না হোক, পুলিশকে তাদের গ্রেপ্তার করতে হয়। তবে আদালতই বিবেচনা করবে তারা দোষী কি না , আমরা নই।’