মেইন ম্যেনু

র‍্যাঙ্কিংয়ে ছুটছেন আল আমিন, টপকালেন সাকিবকেও

হু হু করে এগোচ্ছেন। যেন ঘোড়ায় চেপে সওয়ার। বছরের শুরুতে আল আমিন ছিলেন টি-টোয়েন্টিতে বোলারদের র‍্যাঙ্কিংয়ের​ ৪৩ নম্বরে। সেই তিনি আড়াই মাসে এগিয়েছেন ৩৭ ধাপ। ওমানের বিপক্ষে গত ম্যাচটির পর আরও এগিয়ে এসে বাংলাদে​শি এই পেসার এখন ছয় নম্বরে।

এশিয়া কাপ শেষেই টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ে অনেকটা এগিয়ে ১৫ নম্বরে উঠেছিলেন। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম পর্ব শেষে বাংলাদেশের পেসার উঠে এলেন বোলিং র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ দশেই। সাকিব আল হাসানকে টপকে তিনিই এখন বাংলাদেশের সেরা বোলার। ওমানের বিপক্ষে ৪ উইকেট নেওয়া সাকিবও একধাপ এগিয়ে উঠেছেন আট নম্বরে।

বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে এ ছাড়া এগিয়েছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা ও তাসকিন আহমেদ। তিন ধাপ এগিয়ে মাশরাফি উঠেছেন ৩০ নম্বরে, ছয় ধাপ এগোনো তাসকিনের আছেন ৭০ নম্বরে।

ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সবচেয়ে বড় লাফটি দিয়েছেন তামিম ইকবাল। এশিয়া কাপ শেষে র‍্যাঙ্কিংয়ে পঞ্চাশের বাইরে চলে যাওয়া টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের একমাত্র সেঞ্চুরিয়ান ১৯ ধাপ এগিয়ে উঠে এসেছেন ৩৩ নম্বরে। ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের সেরা ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমান।

২ ধাপ এগিয়ে ১৮ নম্বরে উঠেছেন সাব্বির। চার ধাপ পিছিয়ে ২৯-এ নেমে যাওয়া সাকিব আছেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে দুইয়ে।

গত মার্চ আর এই মার্চ—কত পার্থক্য! আল আমিন ছিটকেই গিয়েছিলেন দল থেকে। বিশ্বকাপেও খেলা হয়নি। সেই তিনি এখন আগুন ঝরাচ্ছেন বোলিংয়ে।