মেইন ম্যেনু

র‍্যাঙ্কিংয়ে পতন সাকিবের

সদ্য সমাপ্ত এশিয়া কাপ একদমই ভালো কাটেনি সাকিব আল হাসানের। ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং কোনো বিভাগেই জ্বলে উঠতে পারেননি বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার। তার প্রভাব পড়েছে র‍্যাঙ্কিংয়েও। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ব্যাটসম্যানদের র‍্যাঙ্কিংয়ে পিছিয়ে পড়েছেন সাকিব। অলরাউন্ডার র‍্যাঙ্কিংয়েও অস্ট্রেলিয়ার শেন ওয়াটসনকে হটিয়ে শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধার করতে পারেননি।

এশিয়া কাপে বাংলাদেশের পাঁচটি ম্যাচেই ব্যাট করা সুযোগ পেয়েছেন সাকিব। পাঁচ ইনিংসে ১৫.৪০ গড়ে তাঁর মোট রান ৭৭। সর্বোচ্চ ৩২ রান ছিল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। বোলিংয়েও বলার মতো সাফল্য নেই। ১৬.৪ ওভার বল করে ১০৮ রানের বিনিময়ে নিয়েছেন পাঁচ উইকেট। সেরা বোলিং আরব আমিরাতের বিপক্ষে ২/২০। এমনকি ফিল্ডার হিসেবেও সেই চনমনে, দক্ষ সাকিবকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। অনেকেরই বিশ্বাস, ভারতের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে রোহিত শর্মার সহজ ক্যাচ তিনি ফেলে না দিলে ফল অন্য রকম হতে পারত। সব মিলিয়ে সাকিবের পারফরম্যান্স মোটেই ‘সাকিবোচিত’ ছিল না টুর্নামেন্টে।

অন্য ক্ষেত্রে না হলেও ব্যাটিং-ব্যর্থতার মূল্য দিতেই হচ্ছে সাকিবকে। টি-টোয়েন্টির ব্যাটিং র‍্যাঙ্কিংয়ে তিনি এখন তিন ধাপ পিছিয়ে ২৫ নম্বরে। এত দিন এই র‍্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশিদের মধ্যে সাকিব সবার ওপরে থাকলেও এখন তাঁর চেয়ে এগিয়ে আছেন সাব্বির রহমান। এশিয়া কাপের মূল পর্বে সর্বোচ্চ ১৭৬ রান করে টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত সাব্বিরের অবস্থান ২০তম।

টি-টোয়েন্টি বোলিং র‍্যাঙ্কিংয়ে অবশ্য উন্নতি হয়েছে সাকিবের। একধাপ এগিয়ে তিনি এখন নবম স্থানে। অলরাউন্ডার র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থান ফিরে না পেলেও ওয়াটসনের সঙ্গে ব্যবধান কমিয়ে এনেছেন। গত মাসে প্রকাশিত র‍্যাঙ্কিংয়ে ওয়াটসনের চেয়ে ১৫ রেটিং পিছিয়ে ছিলেন সাকিব। তবে এখন দুজনের মধ্যে মাত্র এক রেটিংয়ের ব্যবধান।