মেইন ম্যেনু

লক্ষ্মীপুরে সরকারি দলের এক নেতার ‘সালিশ বাণিজ্য’

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন (ইউপি) পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান জাকির হোসেন জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে সালিশ বাণিজ্য ও জামানতের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত কয়েক ব্যক্তি গতকাল সন্ধ্যায় জেলা পুলিশ সুপারের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগে জানা গেছে, চন্দ্রগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা (পূর্ব) বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আনোয়ার হোসেন বাচ্চু গত ১০ই জানুয়ারি গ্র্রেপ্তার হন। তার অনুপস্থিতিতে ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড সদস্য ও সদর উপজেলা (পূর্ব) কৃষকলীগের আহ্বায়ক জাকির হোসেন জাহাঙ্গীর প্যানেল-২ হিসেবে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। এরপর থেকে আইন বহির্ভূতভাবে সালিশের নামে বিভিন্নজনের কাছ থেকে জামানতের টাকা হাতিয়ে নেয়। তিনি টাকার বিনিময়ে প্রভাবিত হয়ে অন্যায়ভাবে সালিশের রায় দেন।

অভিযোগে বলা হয়েছে, দু’মাস আগে চন্দ্রগঞ্জ বাজারে সিএনজি অটোরিকশা পার্কিং করাকে কেন্দ্র করে শেখপুরের আলী করিম নামের এক ব্যক্তির দুই ছেলেকে ইউপি কার্যালয়ে আটকে রেখে মারধর করে। পরে মামলায় জড়ানোর হুমকি দিয়ে ৩০ হাজার টাকা আদায় করে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়। একই ইউনিয়নের ধন্যপুরের আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে ইউপি কার্যালয়ে মামলা করে তার প্রতিপক্ষ। পরে জামানত ও আইনজীবী দিয়ে সালিশ করানোর কথা বলে আনোয়ারের কাছ থেকে নেয়া ২০ হাজার টাকা আত্মসাৎ করে।

একইভাবে আলম হোসেন নামে এক ব্যক্তির জামানতের ২০ হাজার, ধন্যপুর গ্রামের শিশু মিয়ার ১০ হাজার টাকা আত্মসাৎ করে। শেখপুরের আবুল বাশার নামে এক ব্যক্তির দুই একর ৯২ শতাংশ জমি আদালত ও স্থানীয় সালিশের রায় তার পক্ষে থাকার পরও জাকির হোসেন জাহাঙ্গীর প্রতিপক্ষের কাছ থেকে প্রভাবিত হয়ে উক্ত জমি দখলের পাঁয়তারা করছেন।

এসব ঘটনার বিচার চেয়ে জেলা পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ করেছেন ক্ষতিগ্রস্তরা। একইভাবে অভিযোগ রয়েছে সদর উপজেলা কৃষকলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক ও চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন ৭নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মো. সেলিম ও কৃষকলীগ নেতা ও ৯নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মো. খোকনের বিরুদ্ধে। সম্প্রতি এ তিন ইউপি সদস্যের গ্রেপ্তার ও জামানতের টাকা উদ্ধারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ওইসব গ্রামের বাসিন্দারা।

এ ব্যাপারে বক্তব্য জানতে চাইলে প্যানেল চেয়ারম্যান-২ ও সদর উপজেলা (পূর্ব) কৃষকলীগের আহ্বায়ক জাকির হোসেন জাহাঙ্গীরের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

চন্দ্রগঞ্জ থানার ওসি মো. হুমায়ুন কবির জানান, চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান জাকির হোসেনের বিরুদ্ধে সালিশের জামানতের টাকা আত্মসাৎসহ বিভিন্ন অপকর্মের লিখিত অভিযোগ পুলিশ সুপারের কার্যালয় থেকে তিনি পেয়েছেন। এ বিষয়ে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।