মেইন ম্যেনু

লরিচালকের মেয়ে অশ্বিনীর বিশ্ব জয়

বাংলাদেশে অবস্থিত এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর ওইমেন’-এর প্রথম মালয়েশিয়ান শিক্ষার্থী অশ্বিনী তামিল চেলভান জায়গা করে
নিয়েছেন বিশ্বমঞ্চে। নিউ ইয়র্কে নারী ক্ষমতায়নবিষয়ক একটি অনুষ্ঠানে ভাষণ দেবেন তিনি। এ খবর দিয়েছে মালয়েশিয়ার পত্রিকা দ্য স্টার।

নিউ ইয়র্কের বিখ্যাত মেট্রোপলিটান মিউজিয়াম অব আর্ট-এ ‘সাবায়া, সিস্টার, স্টুডেন্ট: ওভারকামিং ভালনেরাবিলিটি থ্রো এডুকেশন’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন বহু আন্তর্জাতিক সংস্থার শীর্ষ ব্যক্তিরা। সেখানে নারী ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রে ও নারীদের বিরুদ্ধে সহিংসতা মোকাবিলায় শিক্ষার শক্তি সমপর্কে আলোচনা করবেন বক্তারা।

মালয়েশিয়ার রাওয়াঙ্গের বাসিন্দা ২০ বছর বয়সী অশ্বিনী তাদেরই একজন। সামাজিক কর্মী মারিনা মাহাথির প্রথম অশ্বিনীর গল্প তার ফেসবুক পেজে প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, অশ্বিনীর সর্বশেষ অর্জনে তিনি গর্বিত ও আনন্দিত। শনিবার এক ফেসবুক পোস্টে মারিনা লিখেছেন, অশ্বিনী আমাকে কথা দিয়েছে, অনুষ্ঠানের সব ছবি সে পাঠাবে। সেগুলো পেলেই আমি ফেসবুকে পোস্ট করবো।

অশ্বিনীর পিতা একজন লরিচালক। ওই অনুষ্ঠানে তিনিও উপস্থিত থাকবেন। বক্তাদের মধ্যে রয়েছেন জাতিসংঘের সহযোগী সংস্থা ইউনেস্কোর মহাপরিচালক ইরিনা বোকোভা, দাতব্য উপদেষ্টা এলিজাবেথ ম্যাককর্মম্যাক সহ অনেকে।

২০১৩ সালে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব উইমেনে (এইউডব্লিউ) ভর্তি হন অশ্বিনী। তার পড়াশুনার পৃষ্ঠপোষক হতে রাজি হয় ম্যায়ব্যাংক ফাউন্ডেশন।

এ ফাউন্ডেশনটি প্রতি বছর একজন মালয়েশিয়ান ছাত্রীকে এইউডব্লিউ’তে পড়াশুনা করার সুযোগ করে দেয়। মারিনা জানান, অশ্বিনী যখন বাংলাদেশে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে মালয়েশিয়া ত্যাগ করছিল, তার পিতামাতার মনে বহু সন্দেহ ও দ্বিধা ছিল। কিন্তু অশ্বিনী যে শিক্ষা গ্রহণ করতে যাচ্ছে, তা সমপর্কে তাদেরকে জানালাম, তখন অস্বস্তি অনেক কমে যায় তাদের। ২ বছর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনার পাঠ চুকিয়েছেন অশ্বিনী।