মেইন ম্যেনু

লাউয়াছড়া উদ্যানের গাছকাটার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে মানবন্ধন

মাহমুদ এইচ খান, মৌলভীবাজার প্রতিনধি: বনের ভেতর ট্রেন চলাচলে দুর্ঘটনা এড়াতে রেল লাইনের দুপাশের ২৫হাজার গাছ কাটার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে মানবন্ধন করেছে সমাজত্রান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট মৌলভীবাজার জেলা শাখা।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় শহরের চৌমুহনা পয়েন্টে ছাত্রফ্রন্টের নেতা কর্মীরা মানবন্ধনে মিলিত হন,ছাত্রফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও মৌলভীবাজার জেলা সভাপতি মিঠন দেবনাথের সভাপতিত্বে এবং শহর সভাপতি বিপাশা দাশ গুপ্তের পরিচালনায় মানবন্ধনে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল(বাসদ) গাজীপুর জেলা সমন্ময়ক রাহাত আহমদ, বাসদ মৌলভীবাজার জেলা সভাপতি এড. মইনুুর রহমান মগনু, ছাত্রফ্রন্ট মৌলভীবাজার সরকারী কলেজ সংগঠক রেহনুমা রুবাইয়াত ও বিশ্বজ্যিত নন্দি।

বক্তারা বলেন; শতবর্ষী ও তার অধিক বয়সী ২৫ হাজার গাছ কর্তন করলে মারাত্মক হুমকির মুখে পড়েছে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের জীববৈচিত্র ও পরিবেশ। উদ্যানের ভেতর রেললাইনের দুপাশের ২৫ হাজার গাছ কাটতে রেলওয়ের এমন সিদ্ধান্তে বনাঞ্চলের জীববৈচিত্র ও পরিবেশ মারাত্মক হুমকির মুখে পড়বে। আর লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান সরকার ঘোষিত সংরক্ষিত এলাকা এবং এই বনাঞ্চল থেকে সব ধরনের গাছকাটা ও অপসারণ নিষিদ্ধ।

উলেখ্য; গত ৯ এপ্রিল রেলওয়ের বিভাগীয় প্রকৌশলী-২ মো. আরমান হোসেন স্বাক্ষরিত একটি চিঠি বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগকে দেওয়া হয়। চিঠিতে বলা হয়েছে, ঢাকা-সিলেট রেললাইনের শ্রীমঙ্গল-ভানুগাছ সেকশনের ২৯৩/১ থেকে ২৯৮/১ কিলোমিটারের পাহাড়ি এলাকায় ঝড়-বৃষ্টিতে গাছ উপড়ে ও ভেঙে রেললাইনের ওপর পড়ছে। এতে যে কোনো সময় দুর্ঘটনা ও যাত্রীসাধারণের প্রাণহানি ঘটতে পারে। এ অবস্থায় উদ্যান এলাকার রেললাইনের উভয় পাশের ন্যূনতম ৫০ ফুট পর্যন্ত গাছ কাটতে হবে। একইভাবে রেললাইনের রশিদপুর-সাতগাঁও বিভাগের ২৭১/২ থেকে ২৭৯/৭ কিলোমিটার পর্যন্ত উভয় পাশের গাছও কাটতে হবে। তা না হলে পরবর্তী সময়ে কোনো দুর্ঘটনা ঘটলে ‘দ্য রেলওয়েজ অ্যাক্ট, ১৮৯০’-এর ১২৮ ধারা মোতাবেক পদক্ষেপ নেওয়া হবে।