মেইন ম্যেনু

লেকে গোসল করতে চাওয়ায় শিশুকে পুলিশের মারধর

রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানের পাশের লেকে গোসল করতে যাওয়ায় এক শিশুকে নির্যাতন করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার বিকেলে এমন বেশ কয়েকটি ছবি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে।

ছবিতে দেখা যায়, চন্দ্রিমা উদ্যানের রাস্তার পাশে বসে পথশিশুকে মারধর করছেন এক পুলিশ সদস্য। কখনো গলা টিপে, কখনো আবার মুখ চেপে ধরে শিশুটিকে জুতাপেটা করছেন ওই পুলিশ সদস্য। আর শিশুটি কান্নাকাটি করছে। ছবিতে শিশুটিকে নির্যাতনের সময় পাশে আরো চার পুলিশ সদস্যকে নির্বিকার বসে থাকতে দেখা গেছে।

ছবিগুলো তুলেছেন আলোকচিত্রী সৈকত মজুমদার। মঙ্গলবার বিকেলে তিনি ছবিগুলো ফেসবুকে পোস্ট করার পর তা কিছুক্ষণের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায়। ছবিগুলো দেখে পুলিশ সদস্যদের এহেন ‘দায়িত্ব পালনে’ ক্ষোভ প্রকাশ করছেন ফেসবুক ব্যবহারকারীরা। মন্তব্যে শিশু নির্যাতনের অভিযোগে এসব পুলিশ সদস্যের শাস্তি চেয়েছেন অনেকেই। অনেক ফেসবুক ব্যবহারকারীই মন্তব্য করেছেন, পুলিশ সদস্যরাই যদি এমন করে তাহলে আমাদের নিরাপত্তা কোথায়?

police-820160426155017

আলোকচিত্রী সৈকত মজুমদার জানান, ছবিগুলো গত ২১ এপ্রিল তোলা। ওই দিন দুপুরের দিকে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার সময় এই দৃশ্য কৌশলে ক্যামেরাবন্দি করেন তিনি। এরপর পুলিশ সদস্যদের কাছে এই ঘটনার ব্যাপারে জানতে চাইলে কর্তব্যরত পুলিশ সদস্যরা বলেন, ‘এ লেকে শিশুদের গোসল করা বন্ধ করতে আমরা ১৩ জন পুলিশ সদস্য এখানে কাজ করছি। কিন্তু শিশুরা কিছুতেই আমাদের কথা শুনতে চায় না। তাদের গোসল করা বন্ধ করতে মাইরই একমাত্র ওষুধ। তাই একজনকে ধরে শাস্তি দিছি।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শেরেবাংলা নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোপাল গণেশ বিশ্বাস বলেন, ‘চন্দ্রিমা উদ্যানে আমার থানার পুলিশ ডিউটি করে না। ওখানে সংসদ ভবনের পুলিশের ডিউটি। আপনি ওনাদের জিজ্ঞেস করেন।’

p-420160426155308

আর জাতীয় সংসদের ডেপুটি সার্জেন্ট এট আর্মস স্কোয়াড্রন লিডার এম সাদরুল আহমেদ খান জানান, জাতীয় সংসদের কোনো আলাদা পুলিশ নেই। শেরেবাংলা নগর থানা এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পুলিশরা জাতীয় সংসদের অধিবেশন চলাকালীন নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করেন। এ ছাড়া সংসদ ভবনের নিরাপত্তারক্ষীরা আছেন। তবে চন্দ্রিমা উদ্যানে তাঁরা কোনো অভিযান চালাননি বলে তিনি জানান।