মেইন ম্যেনু

লেজার বন্দুক বা খেলনা কি শিশুর চোখের ক্ষতি করতে পারে?

সাধারণত বিশ্বাস করা হয় যে লেজার বন্ধুক বা খেলনা দিয়ে খেললে শিশুর দৃষ্টিশক্তির সমস্যা হয় এবং মারাত্মক পর্যায়ে দৃষ্টিহীনতাও সৃষ্টি করতে পারে। যদিও এটি পুরোপুরি সত্যি নয়। লেজারের কত পাওয়ার ব্যবহার করা হচ্ছে তা গুরুত্বপূর্ণ। সাধারণত খেলনায় টাইপ ১ লেজার ব্যবহার করা হয় যার পাওয়ার ০.৪ মিলিওয়াট এর কম। যা চোখের রেটিনার কোন ক্ষতি করেনা। অন্যদিকে টাইপ ২ বা টাইপ ৩ লেজার ব্যবহার করা হয় লেজার পয়েন্টার বা লেজার কলমে যা চোখের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। লেজার কলমে ১-৫ মিলিওয়াট মাত্রার লেজার রশ্মি ব্যবহার করা হয়, যা চোখের রেটিনায় বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে এবং চোখে জখমের সৃষ্টি করতে পারে। এই ধরণের লেজার বন্দুকের ক্ষেত্রে সতর্ক হওয়া প্রয়োজন।

আমেরিকার ফুড এন্ড ড্রাগ এডমিনিস্ট্রেশন (FDA) এর মতে, লেজারের খেলনা শিশুর চোখে মারাত্মক জখম এবং অন্ধত্ব সৃষ্টি করতে পারে যদি সরাসরি চোখ লক্ষ্য করে ফেলা হয়। এজন্যই চোখে যাতে লাজারের আলো না পড়ে সেদিকে খেয়াল রাখা জরুরী। এছাড়াও খেলনার গায়ের লেবেলটি দেখে খেলনাটি সম্পর্কে এবং এতে ব্যবহৃত লেজারের অনুমোদনযোগ্য মাত্রা সম্পর্কে জেনে নিন।

অপথালমোলজি নামক জার্নালে প্রকাশিত ১৯৯৭ সালের এক গবেষণা প্রতিবেদনে জানা যায় যে, শক্তিশালী লেজার পয়েন্টার কলমের আলো ক্রমাগত চোখে ফেললে রেটিনা ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে ১০ সেকেন্ডের ও কম সময়ে।

FDA এর সেন্টার ফর ডিভাইসেস এন্ড রেডিওলজিক্যাল হেলথ এর হেলথ প্রোমোশন অফিসার ড্যান হিউইট বলেন, “কম দামের কমপ্যাক্ট লেজার পয়েন্টারের ক্ষমতা কম থাকে, কিন্তু গত ১০ বছরে লেজার পয়েন্টারের ক্ষমতা ১০-ফোল্ড এবং এর চেয়েও বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে”। তিনি আরো বলেন, “লেজার বিপদজনক হতে পারে বিশেষ করে শিশুদের জন্য যারা লেজারের খেলনা দিয়ে খেলে অথবা বয়স্ক যারা লেজার পয়েন্টার ব্যবহার করেন”।

FDA লেজারের খেলনা বা অন্য জিনিস ব্যবহারের ক্ষেত্রে নিরাপদ থাকার জন্য কিছু পরামর্শ দিয়েছে তা হল –

– লেজার রশ্মি সরাসরি কারো উপর ফেলা উচিৎ নয়, এমনকি পোষা প্রাণীর উপর ও নয়।

– আয়নার মত প্রতিফলক পৃষ্ঠের উপর লেজারের আলো ফেলা উচিৎ নয়।

– গাড়ি ড্রাইভ করার সময় লেজারের আলো ফেললে দুর্ঘটনা হতে পারে।

– লেজারের পণ্য কেনার সময় প্যাকেটে ২১ CFR (ফেডারেল রেগুলেশনের কোড) আছে কিনা দেখে নিন। যদি না থাকে তাহলে সেটি কিনবেননা।