মেইন ম্যেনু

শপথ নিলেন তাইওয়ানের প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট

শপথ নিয়েছেন তাইওয়ানের প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট সাই ইং-ওয়েন। শুক্রবার দেশটির প্রেসিডেন্ট প্রাসাদে নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন তিনি। শপথ অনুষ্ঠানের বক্তব্যে চীনের সঙ্গে একটি ইতিবাচক সংলাপের ঘোষণা দেন সাই ইং-ওয়েন।

জাতীয় পতাকার সামনে দাঁড়িয়ে শপথ নেয়ার পর সাই ইং-ওয়েনকে রাষ্ট্রীয় সিলমোহর প্রদান করা হয়। শপথ অনুষ্ঠান শেষে তিনি প্রসাদের বাইরে গিয়ে উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানান। ডেমোক্রেটিক প্রগ্রেসিভ পার্টির (ডিপিপি) এই নেত্রী চলতি বছর জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে নিরঙ্কুশ জয় পান।

চীন থেকে তাইওয়ানকে স্বাধীন করার পক্ষে ডিপিপি। আর তাই স্বভাবতই দলটির প্রেসিডেন্ট হওয়ায় তাইওয়ানের সঙ্গে চীনের সম্পর্ক আরো শীতল হবে বলে ধারণা বিশ্লেষকদের। তাইওয়ানকে একটি ‘আলাদা হয়ে যাওয়া’ প্রদেশ হিসেবে মনে করে চীন। এর আগে জোরপূর্বক তাইওয়ান দখলের হুমকিও দেয় চীন।

৫৯ বছর বয়সী নতুন এই প্রেসিডেন্ট অবশ্য চীনের সঙ্গে তাইওয়ানের সম্পর্ক স্বাভাবিক রাখতেই আগ্রহী। তবে তাইওয়ানের গণতন্ত্রের প্রতিও চীনকে সম্মান প্রদর্শন করতে হবে বলে দাবি তার। চীনের সঙ্গে সম্পর্ক রাখার পাশাপাশি দেশের অর্থনীতি স্বাভাবিক রাখা হবে নতুন প্রেসিডেন্টের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ।

বিবিসি জানায়, নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ভাষণ দেবেন তা সাই ইং-ওয়েন। এই ভাষণের দিকে নজর চীনের। ভাষণে নতুন প্রেসিডেন্ট তাইওয়ানের অর্থনীতি, উন্নয়ন এবং বেইজিংসহ বিভিন্ন দেশের সঙ্গে এর সম্পর্ক নিয়ে বলবেন। তাইওয়ানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ রাষ্ট্রীয় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ও কূটনীতিকরা প্রেসিডেন্টের শপথ ও ভাষণ প্রদান অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন।