মেইন ম্যেনু

শরীয়তপুরে জমি নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১

রাজিব হোসেন রাজন, শরীয়তপুর থেকে : শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলায় জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে সংঘটিত এক সংঘর্ষে ১ জন আহত হয়েছেন। সকাল ১১.০০টার সময় ঘরিষার বাজারে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে। আহত ব্যক্তিকে চিকিৎসার জন্য নড়িয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ নিয়ে ঘরিষার বাজার উত্তপ্ত অবস্থা বিরাজ করছে। আহত নুরুল আমিন সরদার (৪৫)।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, ঘরিষার বাজার লোকমান হাওলাদার (৭০) এবং নূরুল আমিন সরদার(৪৫) এর মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। তারই ধারাবাহিকতায় সকাল ১১.০০টার সময় নাড়িয়া থানাধীন ঘড়িসার বাজারের পূর্ব মাথায় বারেকের চায়ের দোকানের সামনে নূরুল আমিন সরদারকে পাইয়া লোকমান হাওলাদারের নেতৃত্বে তার ছেলেরা ও বহিরাগত লোকদেরকে দিয়ে বেআইনি জনতাবদ্ধে লোহার রড, বাশের লাঠি,কাঠের বাটাম ইত্যাদি সহকারে আসিয়া নূরুল আমিন সরদারকে চারদিকে ঘেরাউ করিয়া ধরে এবং এলোপাথালি কিল ঘুষি মারিয়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে নীলা ফুলা জখম করে। হামলাকারীরা হলেন- ১। কুতুব আলী হাওলাদার (৪৫), ২। রোমান হাওলাদার (৪০), ৩। রেজাউল হাওলাদার (৩৫), ৪। সম্রাট হাওলাদার (৩০), সর্বপিতা লোকমান হাওলাদার, ৫। জাকির হাওলাদার (২৮), ৬। জুয়েল কাজী (৩৫), ৭। কাশেম মোল্লা (৫০)

এ ব্যাপারে আহতের ভাই আবু কালাম সরদার বলেন ভূমিহীন সূত্রে এই সম্পত্তির মালিক আমরা। দীর্ঘ দিন যাবৎ আমরা কর খাজনা দিয়ে ভোগ করে আসছি। আজ হঠাৎ করে এসে লোকমান হাওলাদারের নেতৃত্বে তার সন্ত্রাসীরা ছেলেরা আমার ভাইকে এলোপাথালি কিল ঘুষি মারিয়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে নীলা ফুলা জখম করে। আমি সংবাদ পাইয়া তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে আসিয়া স্থানীয়দের সহযোগিতায় আমার ভাইকে চিকিৎসার জন্য নড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে ভর্তি করি। তিনি আরও বলেন, লোকমান হাওলাদার ও তার ছেলেদের ভয়ে আমাদের পরিবারের বসবাস কষ্টকর হয়ে দাড়িয়েছে। তারা আমাদের বিভিন্ন সময়ে মারার হুমকি ধমকি দিয়ে থাকে। আজ সকালে আমি বাচ্চু মালের দোকানে বসে থাকা অবস্থায় লোকমান হাওলাদার ও তার বাহিনী এসে আমাকে বলে দোকান থেকে বের হও নইলে তোকে জোবা করে ফেলবো, এই ভয়ে আমি দৌড় দিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় আমার ভাইকে সামনে পেয়ে তাকে মারধোর করে। আমি মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর কাছে সহযোগিতা কামনা করছি লোকমান হাওলাদারের শোষণের হাত থেকে বাঁচার জন্য।

মোক্তার হোসেন মল্লিক বলেন, আমরা গরীব মানুষ সরকারের ভূমিহীন জমির উপর বসবাস করি। লোকমান হাওলাদারের অতিষ্ঠে আমাদের বসবাস করা কষ্টকর হয়ে দাড়িয়েছে। লোকমান হাওলাদারের শোষণে বাজারে ঠিকমত ব্যবসা বাণিজ্য করতে পারে না। আজ ওকে মারে, কাল ওকে মারে, আমরা মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর কাছ থেকে এই জুলুমবাজের হাত থেকে মুক্ত হতে চাই। আমরা গরীব মানুষ তার শোষণে আজ অতিষ্ট হয়ে গেছে।

নড়িয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ ইকরাম আলী মিয়া বলেন, জমি নিয়ে বিরোধে যে সংঘর্ষ হয়েছে তা আমি শুনেছি। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।