মেইন ম্যেনু

শহীদদের নিয়ে খালেদার বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিল বিএনপি

মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিতর্কিত বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিয়েছে বিএনপি।

দলটির দাবি, খালেদা জিয়ার দেওয়া ভাষণের একটি অংশের বিকৃত ব্যাখ্যা করে ক্ষমতাসীন মহল অপপ্রচার ও বিভিন্ন মতলবী কার্যক্রম শুরু করেছে। বিএনপি এর তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছে।

মঙ্গলবার রাতে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এসব কথা বলা হয়েছে। বিবৃতিতে খালেদা জিয়া কেন ওই বক্তব্য দিয়েছিলেন তারও ব্যাখ্যা দেওয়া হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের তালিকা ও পরিচিতি আজ পর্যন্ত সংরক্ষিত না থাকায় স্বাধীনতার পক্ষ-বিপক্ষ বিভিন্ন শক্তি ও ব্যক্তির পক্ষ থেকে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে নানা ধরনের তথ্য ও বিতর্ক উপস্থাপন করা হয়। বিভিন্ন বইয়ে শহীদদের বিভিন্ন রকম সংখ্যা উল্লেখ করা হয়েছে। দেশনেত্রী তার বক্তব্যে সে বিষয়টিই তুলে ধরেছেন। এর মাধ্যমে তিনি মহান শহীদদের পরিচিতি ও প্রকৃত সংখ্যা নিরুপণের প্রয়োজনীয়তার দিকেই ইঙ্গিত করেছেন, যাতে তাদের উপযুক্ত সম্মান প্রদর্শন করা যায়।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, এর মাধ্যমে খালেদা জিয়ার শহীদদের প্রতি কোনো ধরনের অসম্মান প্রদর্শনের প্রশ্নই আসে না। যারা মুক্তিযোদ্ধার তালিকা করেনি বরং ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা সাজিয়ে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের অসম্মান করেছে এবং যারা প্রকৃত শহীদদের তালিকা ও পরিচিতি সংরক্ষণের মাধ্যমে তাদের সম্মানিত করতে চায় না, তারাই বেগম খালেদা জিয়ার বক্তব্যকে বিকৃত ব্যাখ্যা করে অপরাজনীতিতে মেতে উঠেছে। আমরা তাদের এই হীন অপপ্রচার ও তৎপরতা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানাই।’

২১ ডিসেম্বর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল আয়োজিত আলোচনা সভায় মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা নিয়ে বিতর্ক আছে বলে মন্তব্য করেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তিনি বলেন, ‘বলা হয়, এত লক্ষ লোক শহীদ হয়েছে। এটা নিয়েও অনেক বিতর্ক আছে যে, আসলে কত শহীদ হয়েছে মুক্তিযুদ্ধে, এটা নিয়েও বিতর্ক আছে।’

খালেদা জিয়ার এই বক্তব্যের পর এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা হয়। আজ সকালে একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটি, মুক্তিযোদ্ধা সংসদসহ বিভিন্ন সংগঠন গুলশানে অবস্থান করে বক্তব্যের প্রতিবাদ জানায়। সেখান থেকে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ারও দাবি জানানো হয়।