মেইন ম্যেনু

শহীদ জননীর জন্মদিন আজ

প্রখ্যাত কথা সাহিত্যিক, শিক্ষাবিদ ও শহীদ জননী জাহানারা ইমামের জন্ম দিন আজ ৩ মে। ১৯১৯ সালের এই দিনে পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদে জন্ম গ্রহণ করেন একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল আন্দোলনের এই নেত্রী। ১৯৯৪ সালের ২৬ জুন মৃত্যুবরণ করেন বাংলাদেশি এই লেখিকা।

৭১’এ তাঁর জ্যেষ্ঠ পুত্র শফি ইমাম রুমী মুক্তিযোদ্ধে অংশগ্রহণ করেন এবং কয়েকটি সফল গেরিলা অপারেশনের পর পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর হাতে গ্রেফতার হয়ে পরবর্তীতে নির্মমভাবে শহীদ হন। বিজয় লাভের পর রুমীর বন্ধুরা রুমীর মা জাহানারা ইমামকে সকল মুক্তিযোদ্ধার মা হিসেবে বরণ করে নেন৷ রুমীর শহীদ হওয়ার সূত্রেই তিনি শহীদ জননীর মযার্দায় ভূষিত হন৷ তাঁর বিখ্যাত গ্রন্থ ‘একাত্তরের দিনগুলি’।

জাহানারা ইমাম ১৯৪৪ সালে রংপুর কারমাইকেল কলেজ থেকে আইএ এবং ১৯৪৭ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বি.এ পাস করে ১৯৬০ সালে বি.এড ও বাংলায় এম এ ডিগ্রি অর্জন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। পরবর্তিতে ১৯৬৪ সালে যুক্তরাষ্ট্র থেকে সার্টিফিকেট ইন এডুকেশন ডিগ্রি অর্জন করেন।

তার কর্মজীবনের শুরুটা হয়েছিল ১৯৬৮ সালে ঢাকা টিচার্স ট্রেনিং কলেজের প্রভাষক হিসেবে। পরবর্তিতে কয়েক বছর পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটে শিক্ষকতা করেন জাহানারা ইমাম।

১৯৯২ সালের ১৯ জানুয়ারি ১০১ সদস্যবিশিষ্ট একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি আহ্বায়ক জাহানারা ইমাম। এই কমিটি ১৯৯২ সালে ২৬ মার্চ ’গণআদালত’ এর মাধ্যমে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে একাত্তরের যুদ্ধাপরাধের দায়ে জামায়াতের সাবেক আমীর গোলাম আযমের ঐতিহাসিক বিচার অনুষ্ঠান করে। গণআদালাতে গোলাম আযমের বিরুদ্ধে দশটি সুনির্দিষ্ট অভিযোগ উত্থাপিত হয়।

১২ জন বিচারক সমন্বয়ে গঠিত গণআদালতের চেয়ারম্যান জাহানারা ইমাম গোলাম আযমের ১০টি অপরাধ মৃত্যুদন্ডযোগ্য বলে ঘোষণা করেন। ১৯৯৪ সালের ২৬ জুন যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগানের ডেট্টয়েট নগরীর সাইনাই হাসপাতালের বেডে ৬৫ বছর বয়সে জাহানারা ইমাম শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।