মেইন ম্যেনু

শান্তিতে বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ায় তৃতীয়

সম্প্রতি বিভিন্ন নতুন পরিসংখ্যান বিশ্লেষণ করে তৈরি ‘বিশ্বশান্তি ও সহিংসতার’ সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ৮৪তম। আর দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান তৃতীয়। এ অঞ্চলে প্রথম অবস্থানে রয়েছে শীতল ভুটান (বিশ্বে ১৮তম), আর হিমালয় কন্যা নেপাল (বিশ্বে ৬২তম) রয়েছে দ্বিতীয় অবস্থানে।

এদিকে দক্ষিণ এশিয়ার দেশ হিসেবে সবচেয়ে বিপজ্জনক চিহ্নিত হয়েছে আফগানিস্তান। ১৬২ দেশের মধ্যে তাদের অবস্থান ১৬০তম। ১৫৪তম হয়ে এ অঞ্চলে দ্বিতীয় বিপজ্জনক হিসেবে রয়েছে পাকিস্তান।

৪বাংলাদেশের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের অবস্থান ১৪৩তম হিসেবে। আর শ্রীলংকার অবস্থান ১১৪তম। এছাড়া বাংলাদেশের আরেক সীমান্ত দেশ মিয়ানমারের অবস্থান ১৩০।

আলাদা আলাদা ২৩টি পরিসংখ্যানের ওপর ভিত্তি করে ইকোনোমিকস অ্যান্ড পিস ইনস্টিটিউট এ সূচক (গ্লোবাল পিস ইনডেক্স-জিপিআই) তৈরি করেছে। পরিসংখ্যানগুলোর মধ্যে হত্যা, অপরাধ প্রবণতা, সন্ত্রাস ও সামরিক ব্যয়ের তথ্যও রয়েছে।

আর সে হিসাবে বিশ্বের সবচেয়ে বিপজ্জনক দেশ হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে সিরিয়া। গৃহযুদ্ধ ও ইসলামিক স্টেটের (আইএস) উত্থানের কারণেই দেশটি সবচেয়ে বিপজ্জনক। অথচ এই সূচকে ২০০৮ সালে বিশ্বের ১৬২টি দেশের মধ্যে ৮৮তম শান্তিপূর্ণ দেশ হয়েছিল সিরিয়া।

৩বছরভিত্তিক জিপিআই সূচকের এটি নবম সংস্করণ। এই সূচকে ক্ষুদ্র নর্ডিক দেশ আইসল্যান্ড সবচেয়ে শান্তিপূর্ণ দেশ হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। সামাজিক স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তার উচ্চমান, অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে কোনো বিবাদে না জড়ানো ও নিম্ন সামরিক ব্যয় দেশটি নিজেদেরকে এ অবস্থানে প্রতিষ্ঠিত করেছে।

আইসল্যান্ডের পরই দ্বিতীয় শান্তিপূর্ণ দেশ ডেনমার্ক। আর তৃতীয় অস্ট্রিয়া, চতুর্থ নিউজিল্যান্ড, পঞ্চম ফিনল্যান্ড, ষষ্ঠ সুইজারল্যান্ড, সপ্তম কানাডা, অষ্টম জাপান, নবম অস্ট্রেলিয়া এবং দশম স্থানে রয়েছে চেক রিপাবলিক।



(পরের সংবাদ) »