মেইন ম্যেনু

শাস্তির মুখে সাব্বির-মাশরাফি!

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে জয়ের পথে থেকে হারের স্বাদ পেতে হয় বাংলাদেশকে। ৫৩ বলে ছয় উইকেট হাতে নিয়ে ৩৯ রান করতে উল্টো হেরে যায় ২১ রানে। তাই দ্বিতীয় ম্যাচে মরিয়া হয়েই মাঠে নেমছিল টাইগাররা। তবে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে লক্ষ্যটা খুব বড় দিতে পারেনি বাংলাদেশ।

২৩৯ রানের সাদামাটা লক্ষ্যের শুরুতেই তুলে নেন চার উইকেট। তবে এক প্রান্তে ক্রমেই হুমকি হয়ে উঠছিলেন ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার। তাকে ফিরিয়ে বাংলাদেশ শিবিরে স্বস্তি ফিরিয়ে আনেন তাসকিন; কিন্তু তাকে আউট করার পর বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের উদযাপনের মাত্রা ছাড়িয়ে বাটলারের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন তর্কে। ফলে শাস্তির মুখে পড়তে যাচ্ছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা ও সাব্বির রহমান।

রোববার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে তাসকিনের করা ২৮তম ওভারের প্রথম বলে খেলতে গিয়ে মিস করেন বাটলার। ফলে বল পায়ে লাগলে বেশ জোরালো আবেদন করেন তাসকিন। কিন্তু আম্পায়ার তাতে সাড়া না দিলে বেশ উত্তেজিত হয়ে পড়েন তিনি। এরপর অধিনায়কের সঙ্গে আলোচনা করে রিভিউর সিদ্ধান্ত নেন তারা। রিভিউতে বাংলাদেশের পক্ষে সিদ্ধান্ত আসলে উদযাপন করেন বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়রা। আর বাংলাদেশের এমন উদযাপন পছন্দ হয়নি বাটলারের। তিনি জড়িয়ে পড়েন বিতর্কে। এ সময় তার সঙ্গে তর্কে জড়ান সাব্বির-মাহমুদউল্লাহরাও।

আম্পায়ার যখন বাটলারকে আউট ঘোষণা করেন তখন বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা হাত ঘুরিয়ে উদযাপন করেন, বিশেষ করে সাব্বির রহমান। বাদ যাননি অধিনায়কও। কারণ বাটলারের গুরুত্বপূর্ণ উইকেট পড়ার কারণে জয় অনেকটা নিশ্চিতই ছিল। রিভিউর সিদ্ধান্ত নিজেদের পক্ষে যাওয়ায় একটু বেশিই আনন্দিত হয়ে পড়েন মাশরাফিরা।

বিসিবির এক সূত্র থেকে জানা গেছে মাশরাফি এবং সাব্বির উভয় খেলোয়াড়ের এক রেটিং পয়েন্ট করে কাটা হতে পারে। এর আগে আফগানিস্তান সিরিজে আম্পায়ারের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়ায় দুই পয়েন্ট কাটা গিয়েছিল সাব্বিরের। আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী আগামী ২৪ মাসের মধ্যে আর এক পয়েন্ট কাটা গেলে কমপক্ষে এক ম্যাচ নিষেধাজ্ঞার খাঁড়ায় পড়বেন।