মেইন ম্যেনু

শিক্ষকদের দাবি পূরণে কাজ চলছে

আন্দোলনরত পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের গ্রহণযোগ্য দাবি শিগগির পূরণ করা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি জানান, এ ব্যাপারে তারা ইতোমধ্যে কাজ শুরু করেছেন। শিক্ষকদের দাবি পূরণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য শিক্ষাসচিবকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) আয়োজিত সেকেন্ডারি অ্যাডুকেশন কোয়ালিটি অ্যান্ড অ্যাকসেস অ্যান হান্সমেন্ট প্রজেক্ট (সেকায়েপ) আয়োজিত বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটি ও শিক্ষকদের অরিয়েন্টশন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের মন্ত্রী এ কথা জানান।

মন্ত্রী বলেন, শিক্ষকদের সমস্যা সমাধান সহজ নয়। তারপরও তাদের সমস্যার গ্রহণযোগ্য ও সম্মানজনক সমাধানে কাজ চলছে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব নেয়ার সময় এসএসসি ও সমানের পরীক্ষায় অর্ধেকের বেশি শিক্ষার্থী ইংরেজি, গণিত ও বিজ্ঞানে ফেল করতো। যে কারণে ফেলের হার বেশি ছিলা। আমার এর কারণ অনুসন্ধান করে দেখেছি দুর্গম এলাকায় শিক্ষার্থীরা তিনটি বিষয়ে দুর্বল। সেকায়েপ প্রকল্পের মাধ্যমে ২০১৫ সালে দুর্গম এলাকার চারশ’ স্কুলে ২৫ হাজার টাকা বেতন দিয়ে ২ হাজার ৪০০ জন মেধাবী শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে ছিলাম। তিনটি বিষয়ে তারা এক লাখ ৫৪ হাজার অতিরিক্ত ক্লাস করেছে। যার কারণে এখন ইংরেজি, গণিত ও বিজ্ঞানে শিক্ষার্থী ফেলে কমেছে। এর ফলে পাসের হার ও বিজ্ঞানে শিক্ষার্থী বাড়ছে। ২০১৭ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে আরও দুই হাজার স্কুলে এ প্রকল্পের অধীনে নিয়ে আসা হবে।

অনুষ্ঠানে সেকায়েপ প্রকল্পের পরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব ড. মো. মাহমুদুল হকের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন, শিক্ষা সচিব মো. সোহবার হোসেন ও মাউশির মহাপরিচালক অধ্যাপক ফাহিমা খাতুন প্রমুখ।