মেইন ম্যেনু

তালাবার মানববন্ধনে বক্তারা :

‘শিক্ষা আইন বাস্তবায়ন হলে বিনা ঘোষনায় মাদরাসা শিক্ষা বন্ধ হয়ে যাবে’

মাদরাসা সমূহকে স্কুল-কলেজ বনানোর ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে মানববন্ধনে নেতৃবৃন্দ বলেছেন, শিক্ষা আইন বাস্তবায়ন হলে বিনা ঘোষনায় মাদরাসা শিক্ষা বন্ধ হয়ে যাবে, অতীতের নিউস্কীমের মতো মাদরাসা শিক্ষাকে বন্ধ করার জন্য স্কুলের বই পড়ানো হচ্ছে। ২০১০ সালের শিক্ষা নীতির সিলেবাস অনুযায়ী হাতে গোনা কয়েকটি মাদরাসার বই ছাড়া বাকী সব স্কুলের বই বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। তারা বলেন, স্কুলের সিলেবাসও করা হয়েছে ইসলাম বিরোধী, যেখানে পড়ানো হচ্ছে নাস্তিক্য ও হিন্দুত্ববাদের মতাদর্শ। ৮ম শ্রেণী পর্যন্ত প্রাথমিক স্তর করলে হাফেজী, ফোরকানিয়াসহ এপর্যায়ের বিভিন্ন দ্বীনি প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যাবে বলে মনে করেন নেতৃবৃন্দ।

নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে মাদরাসার জন্য স্বাতন্ত্র্য সিলেবাস প্রনয়ণ ও ইসলাম বিরোধী শিক্ষানীতি ২০১০ বাতিলের দাবি জানান। তারা মাদরাসার ছাত্র-শিক্ষক ও ইসলাম প্রিয় জনতাকে সাথে নিয়ে শিক্ষানীতি ও শিক্ষা আইন রুখে দেয়ার ঘোষনা দেয়। সাখাওয়াত হুসাইন ২০১৭ শিক্ষাবর্ষ থেকে চাপিয়ে দেয়া সিলেবাস না পড়ানোর জন্য মাদরাসা শিক্ষকদের জোর দাবি জানান। তিনি বলেন, সরকারের ঘাড়ে বাম ও রামরা সওয়ার হয়েছে, তিনি নাস্তিকদের প্রণীত শিক্ষানীতি মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি অনুরোধ জানান।

শুক্রবার সকাল ১০টায় জাতীয় মসজিদ বায়তুল মুকাররমের সামনে বাংলাদেশ জমিয়তে তালাবায়ে আরাবিয়া ঢাকা মহানগরীর উদ্যোগে মাদরাসা সমূহকে স্কুল-কলেজ বনানোর ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা মহানগরী সভাপতি মুহাম্মদ নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন,তালাবার কেন্দ্রীয় সভাপতি মুহাম্মদ আবদুল কাদির, সাবেক সভাপতি এস এম সাখাওয়াত হুসাইন, সাবেক কেন্দ্রীয় হযরত মওলানা আবুবকর সিদ্দিক কুড়িগ্রামী,বর্তমান সহসভাপতি মুহাম্মদ আনোয়ার হুসাইন, প্রধান সম্পাদক আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তফা আল মুজাহিদ।