মেইন ম্যেনু

শিশুকে আত্মবিশ্বাসী করে তুলবেন যেভাবে

আপনার শিশুটি কি একা একা থাকতে বেশি পছন্দ করে? নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাসী নয়? প্রকৃতপক্ষে প্রত্যকটি শিশুই একে অন্যর চেয়ে আলাদা। এর মাঝে কিছু শিশু আছে যারা নিজেকে নিজের মাঝে গুঁটিয়ে রাখতে পছন্দ করে। অনেক শিশুই নতুন পরিস্থিতি, চারপাশের নতুন মুখগুলোর মাঝে অস্বস্তিকর অবস্থায় পড়ে যায়। শিশুকে এই অবস্থা থেকে বের করে আনা পরিবার এবং সাথে সাথে শিক্ষকদের জন্যও অনেক কঠিন কাজ হয়ে দাঁড়ায়। শিশুদের এই অবস্থা থেকে বের করে আনার কিছু কৌশল নিচে দেওয়া হলো-

শিশুর কর্মকাণ্ড পর্যবেক্ষণ :
আশেপাশের মানুষের ব্যবহার মাঝে মাঝে শিশুর অবচেতন মনকে কষ্ট দেয়। সে সবার মাঝেও নিজেকে নিরাপদ মনে করে না। সমবয়সীদের মাঝে যখন বড়রা শিশুটিকে তার দুর্বলতা নিয়ে উপহাস করে তখন শিশুটি তাকে তার মাঝে গুঁটিয়ে নেয়। কোনো কাজেই সে তার আগের সেই আত্মবিশ্বাস খুঁজে পায় না। তাই শিশুর কর্মকাণ্ড খেয়াল করুন। কারো কথায় সে নিজেকে গুঁটিয়ে নিচ্ছে কি না?

অন্য শিশুর সঙ্গে তুলনা না করা :
প্রত্যক শিশুর মাঝে আলাদা আলাদা প্রতিভা সুপ্ত অবস্থায় থাকে, যা পরিবার বা সমবয়সী বন্ধুদের সাথে খেলার ছলে প্রকাশ পায়। যে কোনো শিশুই একটি নির্দিষ্ট কাজে পারদর্শী হয়ে থাকে। যখন তাকে সেই কাজের জন্য উদ্বুদ্ধ না করে বরং সবার সামনে হেয় করা হয় তখনি শিশুটি নিজের মাঝে নিজেকে লুকিয়ে ফেলে।

শিশুর সঙ্গে কথা বলুন :
শিশুর সঙ্গে পরিবারে বন্ধুত্বসুলভ সম্পর্ক খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। পরিবারের সবার সঙ্গে শিশু যত মিশতে পারবে, তার মাঝের জড়তা তত দ্রুত কেটে যাবে।

শিশুর ইতিবাচক দিকগুলো নিয়ে কথা বলুন :
শিশুর দক্ষতা আর ক্ষমতা নিয়ে তাকে উদ্বুদ্ধ করুন। তাকে তার কাজের প্রতি অনুপ্রাণিত করুন। তার ছোট ছোট সফলতার ধাপগুলোতে তাকে উৎসাহী করে তুলুন।