মেইন ম্যেনু

শিশুর আঙুল কেটে ডাস্টবিনে ফেললেন নার্স

সদ্যজাত শিশুর আঙুল কেটে ডাস্টবিনে ফেলে দিলেন সরকারি হাসপাতালের নার্স। লিউকোপ্লাস্ট জড়ানো স্যালাইনের চ্যানেল কাটতে গিয়ে সদ্যজাত ওই শিশুর আস্ত বুড়ো আঙুলটাই কেটে ফেলেন তিনি। তার পর রক্তাক্ত শিশুটিকে মায়ের কোলে ধরিয়ে দিয়ে হন্তদন্ত হয়ে বেরিয়ে যাওয়ার আগে বলেন, ‘আঙুলটা কাটার দরকার ছিল, তাই কেটে দিয়েছি!’

ঘটনাটি ঘটে রোববার রাতে পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাট হাসপাতালে। আঙুল কেটে ফেলার পরে বেগতিক বুঝে তাদের তড়িঘড়ি ‘রেফার’ করে দেওয়া হয় উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। সদ্যজাতের বাবা বলেন, ‘আমরা উত্তেজিত হয়ে পড়ছি দেখে হাসপাতাল সুপার এসে আমাদের আশ্বস্ত করে বলেন, ‘উত্তরবঙ্গ মেডিক্যালে নিয়ে যান ওখানে প্লাস্টিক সার্জারি করে কাটা আঙুল জুড়ে দেওয়া যাবে।’

না, আঙুলটি আর জোড়া লাগেনি। ওয়ার্ডের এক কোণে রাখা ডাস্টবিন থেকে মেয়ের কাটা আঙুলের টুকরোটা নিয়ে সে রাতেই দশ ঘণ্টার পথ পেরিয়ে শিশুটির বাবা-মা শিলিগুড়ি ছুটে যান। পরদিন সকালে পৌঁছে জানতে পারেন উত্তরবঙ্গ মেডিক্যালে প্লাস্টিক সার্জারির ব্যবস্থা নেই। অগত্যা মেয়ে শিশুটির রক্ত ভেজা আঙুলে ব্যান্ডেজ জড়িয়েই বালুরঘাট হাসপাতালে ফিরে আসেন তারা। অবশ্য এ নিয়ে শিশুটির এক আত্মীয় থানায় ওই নার্সের বিরুদ্ধে ‘ইচ্ছাকৃত ভাবে’ আঙুল কাটার অভিযোগ দায়ের করেছেন।

তথ্য সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা



(পরের সংবাদ) »