মেইন ম্যেনু

শুধু পায়ের ওজনই ৬২ কেজি!

৩৮ বছর বয়সী ক্লেয়ার টিকলের যখন ১৬ বছর বয়স তখন থেকেই তিনি লক্ষ্য করেন তার শরীরের তুলনায় তার পা দুটো একটু বেশীই স্বাস্থ্যবান মনে হচ্ছে। বিষয়টি ডাক্তারকে জানানোর পর ডাক্তার বলেন, তাকে অবশ্যই ডায়েট করতে হবে। বেশী খাদ্য গ্রহনের ফলেই এমনটি হচ্ছে, তাই খাদ্য গ্রহন কমাতে হবে। মেনে চলতে হবে ডায়েটের নিয়ম কানুন।

এরপর থেকে তিনি ডায়েট শুরু করেন। কিন্তু দেখেন, ডায়েটের ফলে শরীরের ওজন কমলেও পায়ের কোন পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। বরং পা দুটো আগের মত বেড়েই চলছে। ব্যাপারটি ডাক্তারকে জানালে তিনি সেই ডায়াটের কথাই বলেন। ডাক্তার এও বলেন, হয়ত ডায়েট ঠিকভাবে করা হচ্ছে না। তাই অতিরিক্ত ওজনেরই প্রভাব পড়ছে পায়ে।

এভাবে কেটে গেল ১৬টি বছর। অবশেষে টিকলের ৩২ বছর বয়সে নিছক কৌতুহলের বশে পায়ের ডায়াগনসিস করিয়ে জানতে পারেন তা পা দুটো লিপোডিমাতে আক্রান্ত। এই রোগ শরীরের যেখানটায় হয় সেখানের টিস্যু ক্রমাগত বাড়তে থাকে এবং তার আশে-পাশে প্রচুর চর্বি জমা হয়। ফলে ক্রমেই হৃষ্ট-পুষ্ট হতে শুরু করে শরীরের ঐ অংশ। আর এ কারনেই তা পা’দুটোর এমন অবস্থা হয়েছে।

ক্লেয়ার টিকলের ৬ বছর বয়সী একটি ছেলে রয়েছে। তিনি দু:খ করে বলেন, আমি অন্য দশজন মায়ের মত ছেলেকে নিয়ে বাগানে হাটতে পারি না, সাইকেল চালাতে পারি না। বেশী হাটলে পা’দুটো খুব ব্যাথা করে। তিনি আরো বলেন, অনেকে না বুঝে মনে করে অতিরিক্ত ওজনের জন্যই বুঝি আমার পায়ের এমন অবস্থা। তখন খুব খারাপ লাগে।