মেইন ম্যেনু

শুরু হয়েছে মানুষ হত্যার প্রতিযোগিতা!

সম্পদের অসম বণ্টনের ফলেই সৃষ্টি হয় প্রতিযোগিতার। প্রকৃতির স্বাভাবিক নীতির বাইরে গিয়ে চাপ প্রয়োগের মাধ্যমে অপরকে ছাড়িয়ে যাওয়ার নামই মূলত প্রতিযোগিতা। শৈশবে প্রায় প্রতিটি স্কুলেই বিভিন্ন প্রতিযোগিতা শেখানো হয় জীবন উন্নয়নের নামে। কখনও সেটা হয় দৌড় প্রতিযোগিতা, আবার কখনও সেটা হয় খেলায় জেতার প্রতিযোগিতা। শৈশবের ওই প্রতিযোগিতা যে কখন অবচেতনে মানুষের স্বভাবে প্রবেশ করে তা জ্ঞানত মানুষ জানতেও পারে না।

সম্প্রতি ওই স্বভাবের কারণেই যুক্তরাষ্ট্রের লসঅ্যাঞ্জেলসের দুইটি গ্যাং একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের দ্য ডেইলি বিস্ট নামের একটি গণমাধ্যম জানানয় যে, আগামী একশ দিনের মধ্যে কোন গ্যাং আগে একশ জন মানুষকে হত্যা করতে পারে এই প্রতিযোগিতা ছুড়ে দিয়ে গ্যাং দুইটি মানুষ হত্যায় নেমেছে। স্থানীয়দের ভাষায়, বিবদমান গ্যাং দুটির মধ্যে একটি ওয়েস্টার্ন এবং অন্যটি নরম্যান্ডি গ্রুপ। দীর্ঘদিন ধরেই এই দুইটি গ্যাংয়ের মধ্যে পারস্পরিক সংঘর্ষ বিরাজ করছে বলেও জানা যায়।

লস অ্যাঞ্জেলসের স্থানীয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীরা ‘হান্ড্রেড-ডেস-হান্ড্রেড-নাইটস’ নামে হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে সবাইকে সতর্ক করে দিচ্ছিল। আর এই সতর্কবার্তা থেকেই মূলত স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন গ্যাং দুটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের তোড়জোড় শুরু করে। ধারণা করা হচ্ছে, গত সপ্তাহে ‘কেপি’ গ্যাংয়ের একজন সদস্য নিহত হওয়ার ঘটনা নিয়েই এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

IMAGE

স্থানীয় পুলিশ সূত্র জানায়, বিগত কয়েক সপ্তাহ ধরেই শহরে সহিংস ঘটনার সংখ্যা বেড়ে গেছে। গত সপ্তাহেই গুলিতে একজন মানুষ নিহত ও ১২জন আহত হওয়ার ঘটনাও ঘটে। এমনকি গত সোমবার রাতে একজন বন্দুকধারীর গুলিতে একজন নারী ও দুই শিশু আহত হয়। জানা যায়, ওই ঘটনায় আটককৃত ব্যক্তি ছিল স্থানীয় একটি গ্যাংয়ের সদস্য।

গত শনিবার রাতে লস অ্যাঞ্জেলস পুলিশ একটি সাধারণ সতর্কতা জারি করেছে শহরজুরে। শহরের বেশ কয়েকটি স্থানে গ্যাং সদস্যদের ভেতরে গোলাগুলির ঘটনায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। যদিও সতর্কতা জারির পরবর্তী পাঁচ ঘণ্টার ব্যবধানে বেশ কয়েকটি গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। লস অ্যাঞ্জেলস পুলিশ এখনও প্রতিযোগিতা বন্ধে কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নিতে পারেনি, তবে সতর্ক অবস্থা জারি রেখেছে।