মেইন ম্যেনু

শেষযাত্রায় খালিদ মাহমুদ মিঠু

সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের উদ্দেশ্যে নিহত জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাওয়া নির্মাতা ও চিত্রগ্রাহক খালিদ মাহমুদ মিঠুর মরদেহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নেয়া হয়েছে। সকাল সাড়ে ১০টা থেকে জনসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদন চলছে।

সাধারণ মানুষের পাশাপাশি শিল্পী-সাহিত্যিক, শিক্ষক ও বন্ধুসহ প্রখ্যাত ব্যক্তিরা শহীদ মিনারে এ বিখ্যাত নির্মাতাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে এসেছেন। বলছেন, তার অকাল মৃত্যুতে এই বহুমাত্রিক শিল্পী, নির্মাতা, চিত্রগ্রাহক এবং ফটোগ্রাফারকে হারিয়েছে বাংলাদেশ।

খালিদ মাহমুদ মিঠুর মেয়ে শিরোপা পূর্ণা তার বাবার জন্য সবার কাছে দোয়া চান। খালিদ মাহমুদকে তার কাজের জন্য চিরকাল মনে রাখতে এবং তার অসমাপ্ত কাজগুলোকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সবার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

শহীদ মিনার থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদে মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে। সেখানে নামাজে জানাযা শেষে নিয়ে যাওয়া হবে চারুকলা ইনস্টিটিউট প্রাঙ্গণে। সেখানেও নিহত এই প্রখ্যাত নির্মাতাকে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করবেন জনগণ।

চারুকলা ইনস্টিটিউট থেকে এরপর এফডিসিতে নিয়ে যাওয়া হবে খালিদ মাহমুদের মৃতদেহ। সেখানে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন পর্ব শেষে মরদেহ আনা হবে চ্যানেল আই প্রাঙ্গণে। এখানেই শেষ নামাজে জানাযা হওয়ার পর বাদ আসর বনানী কবরস্থানে খালিদ মাহমুদের দাফন সম্পন্ন হবে।

সোমবার দুপুরে রিকশা করে বাসায় ফেরার পথে ধানমন্ডি ৪ নম্বর রোডের পাশের একটি গাছ আকস্মিক ভেঙ্গে পড়ে মারা যান খালেদ মাহমুদ মিঠু।