মেইন ম্যেনু

শেষ ঘাঁটি হারিয়ে বিশ্ব থেকে ‘বিচ্ছিন্ন’ আইএস

তুরস্ক সীমান্তবর্তী সিরিয়ায় শেষ অবস্থান থেকে পিছু হটেছে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)।

এর ফলে বহির্বিশ্বের সঙ্গে গোষ্ঠীটি একেবারে যোগাযোগবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ল বলে জানিয়েছে পর্যবেক্ষক সংস্থা।

ব্রিটেনভিত্তিক সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউমান রাইটস রোববার জানিয়েছে, তুর্কি সীমান্তবর্তী সিরিয়ার সব গ্রাম থেকে পিছু হটেছে আইএস।

তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদ্রিমও একই কথা বলেছেন, ‘সিরীয়-তুরস্ক সীমান্ত থেকে সেনাবাহিনী সব সন্ত্রাসীগোষ্ঠীকে বিতাড়ন করেছে।’

রোববার দেশটির সেনাবাহিনীর এই সাফল্য তিনি টেলিভিশন ভাষণের মাধ্যমে জাতিকে জানান।

সেখানে ইলদ্রিম বলেন, ‘আল্লাহকে ধন্যবাদ, আজাজ থেকে জারাব্লুস, সিরিয়ার সঙ্গে আমাদের ৯১ কিলোমিটার সীমান্ত আজ থেকে নিরাপদ।’

তিনি আরও বলেন, ‘সমস্ত সন্ত্রাসী সংগঠন পিছু হটেছে, তারা পালিয়ে গেছে।’

এদিকে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) সঙ্গে লড়াই করতে সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে আরও ট্যাংক মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে তুরস্কের গণমাধ্যম।

গত সপ্তাহে আইএসের দখল থেকে পশ্চিমাঞ্চলীয় জারাব্লুস এলাকা দখলের পর এবার উত্তরাঞ্চলে নজর দিয়েছে তুরস্ক।

এএফপির খবরে বলা হয়, তুরস্কের কিলিস শহরের কাছাকাছি তুর্কি-সিরিয়া সীমান্ত অতিক্রম করে এসব ট্যাংক ঢুকে পড়ে।

স্থানীয় সাংবাদিকদের দাবি, তারা গোলাগুলির শব্দ শুনতে পেয়েছেন এবং সিরিয়া থেকে ধোঁয়া উঠতে দেখেছেন।

তুরস্কের সেনাবাহিনীর প্রবেশের কারণে ওই এলাকা থেকে বেসামরিক নাগরিকদের নিজেদের বাড়ি-ঘর ছেড়ে পালাতে দেখা গেছে।

ওই এলাকায় তুর্কি ও সিরীয় বিদ্রোহীদের সঙ্গে আইএসের সংঘর্ষ এখনও চলছে বলে খবরে বলা হয়েছে।

তুরস্কের গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, আইএসের অবস্থানে কামান হামলার জন্য এসব ট্যাংক মোতায়েন করা হয়েছে। তুরস্ক থেকে কমপক্ষে আরও ২০টি ট্যাংক ও অস্ত্রসজ্জিত পাঁচটি সাঁজোয়া যান মোতায়েন করা হয়েছে।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউমেন রাইটস জানায়, বিদ্রোহীরা আইএসের হাত থেকে জারাব্লুস এবং পশ্চিমের বেশ কয়েকটি গ্রাম পুনরুদ্ধার করেছে।