মেইন ম্যেনু

শেষ পর্যন্ত বরখাস্তই করা হলো কালপাগেকে

শেষ পর্যন্ত বরখাস্ত করা হলো স্পিন বোলিং কোচ রুয়ান কালপাগেকে। বেঁধে দেওয়া ১৬ আগস্ট সময়সীমার মধ্যে কাজে ফিরে না আসায় এ পদক্ষেপ নেয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। নির্দিষ্ট সময়ে তাকে কাজে ফিরে আসতে কয়েক দফা মেইল দেয় বিসিবি। তবে ফিরে আসা তো দূরের কথা, এমনকি বিসিবির সঙ্গে কোনো রকম যোগাযোগও করেননি এ লঙ্কান। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস।

কালপাগেকে বরখাস্ত করা প্রসঙ্গে বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমরা তাকে ১৬ আগস্টের মধ্যে কাজে আসার জন্য একটি চিঠি দিয়েছিলাম, কিন্তু তিনি কোনো সাড়া দেননি। তাই বিসিবি তার সমস্ত চুক্তি থেকে তাকে বরখাস্ত করলো।’

বুধবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে এক সংবাদ সম্মেলনে বিসিবির প্রধান নির্বাহী জানিয়েছিলেন, কালপাগে ১৬ আগস্টের মধ্যে না আসায় আমরা চুক্তি অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। দেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে কথা ওঠার পর থেকেই গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই কালপাগে এবং বিসিবি এ নিয়ে আলোচনা করছিলেন।

বিসিবির মতে, নিরাপত্তা নিয়ে বিদেশিদের সবারই সমান উদ্বেগ রয়েছে। কিন্তু তারা যে অতিরিক্ত নিরাপত্তা চেয়েছেন বিসিবি তা পূরণ করেছে। তার তিন সহযোগী চণ্ডিকা হাথুরুসিংহে, রিচার্ড হ্যালসল ও মারিও ভিল্লাভারায়ন ঢাকা এসেছেন প্রায় সপ্তাহ খানেক আগেই। এসে পুরো দস্তুর কাজেও নেমে পড়েছিলেন তারা।

গত সপ্তাহে বিসিবি কালপাগেকে “claim isn`t the right assessment of the situation” (বর্তমান পরিস্থিতির দাবিতে এটা কি সঠিক মূল্যায়ন নয়) শিরোনামে একটি বিজ্ঞপ্তি দেয়।

কালপাগে সহকারি কোচ হিসেবে দুই বছর মেয়াদে ২০১৪ এর আগস্টে, হাথুরু ও মারিওর নিয়োগের সময় এক সঙ্গে বাংলাদেশে আসেন। অন্যান্য কোচদের মতো তার মেয়াদও ২০১৯ সাল পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়। এর আগে ২০০৮ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত জাতীয় ক্রিকেট একাডেমির প্রধান কোচ হিসেবে বাংলাদেশে কাজ করেছিলেন এ লঙ্কান।