মেইন ম্যেনু

শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হতে প্রস্তুত স্মৃতিসৌধ

টিপু সুলতান (রবিন), সাভার থেকে: আগামীকাল ২৬ শে মার্চ, মহান স্বাধীনতা দিবস। তাই জাতির শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হতে প্রস্তুত সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধ। জাতির গৌরব আর অহংকার ঘেরা এ-দিনটিতে সৌধ- প্রাঙ্গণে ঢল নামবে লাখো মানুষের। আর লাখো মানুষের হৃদয়াচ্ছন্ন শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় ফুলে ফুলে ভরে যাবে শহীদ বেদি।

গণপূর্ত বিভাগের কর্মীদের টানা ১৫ দিনের অক্লান্ত পরিশ্রমে এক নতুন রুপ ধারন করেছে পুরো সৌধ প্রাঙ্গণ। নানা রঙ্গের বাহারী ফুলের চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে সৌধ চত্বর। চত্বরের সিড়ি ও নানা স্থাপনায় পড়েছে রং-তুলির আঁচড়।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী শহীদ বেধীতে ফুল দিয়ে জাতীর বীর সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা আর ভালবাসা জানাবেন। তাই সেনাবাহীনির পক্ষ থেকে যাবতীয় গার্ড অব অনার এর মহড়া শেষ করা হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা। নিরাপত্তার লক্ষে সৌধ প্রঙ্গনের পাশা পাশি পুরো এলাকায় নিরাপত্তা চৌকি, পর্যবেক্ষণ টাওয়ারসহ বসানো হয়েছে সিসিটিভি ক্যামেরা।

photo-3

স্মৃতিসৌধের নিরাপত্তার ব্যাপারে পরিদর্শনে এসে ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার হাবিবুর রহমান জানান, প্রতি বছরের ন্যায় এবারও রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও ভিআইপিদের আগমণ উপলক্ষে নেওয়া হয়েছে বিশেষ নিরাপত্তা বলয়। আর এজন্য স্মৃতিসৌধ এলাকায় সাদাপোশাকধারীসহ গোয়েন্দা পুলিশের একাধিক টীম টহল দায়িত্ব পালন করবে। একই সাথে সৌধ এলাকায় বসানো হয়েছে ২২টি সিসিটিভি ক্যামেরা। এবং জাতীয় স্মৃতিসৌধের সামনে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের গুরুত্বপূর্ণ দুটি পয়েন্টে স্থাপন করা হয়েছে ওয়াচ টাওয়ার। সব মিলিয়ে তিন স্তরের নিরাপত্তা বেষ্টনীতে ২৬মার্চ আচ্ছাদিত থাকবে সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধ।

অপরদিকে জাতীয় স্মৃতিসৌধের দায়িত্বে থাকা উপ-সহকারী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান জানান, দিন টিকে সামনে রেখে যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পূর্ণ করাসহ ২৩মার্চ থেকে ২৬ মার্চ প্রথম প্রহর পর্যন্ত জাতীয় স্মৃতিসৌধে সাধারণ দর্শনার্থীদের প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। আর ২৬শে মার্চ শহীদ বেদীদে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর জাতীর বীর সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন শেষ হওয়ার পর সর্বসাধারণের উন্মুক্ত হবে জাতীয় স্মৃতিসৌধ।