মেইন ম্যেনু

শ্রমিকের কাজ তদারকি করবে ঘড়ি

প্রযুক্তির উৎকর্ষ সাধনে একজন শ্রমিক কতক্ষণ কাজ করছে তা জানিয়ে দেবে হাতে পড়া ঘড়ি। সারাদিন কি পরিমাণ হাঁটলে বা দৌঁড়ালে হার্টের অবস্থা ভালো থাকবে তাও জানিয়ে দেবে এই ডিভাইসটি।

২২ ফেব্রুয়ারি স্পেনের বার্সেলোনাতে অনুষ্ঠিত মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে এমন একটি প্রযুক্তি প্রদর্শন করেছে প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এক্সেনচার। নতুন এই প্রযুক্তির নাম ‘কানেক্টেড ওয়ার্কার’।

ঘড়িটি একটি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শ্রমিকের কাজ সম্পর্কেও অবহিত করবে প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাকে। ঘড়ির ডাটা অনুসারে সহজেই বানানো যাবে একজন শ্রমিকের অত্যাবশ্যক পরিসংখ্যান। কিন্তু এই সংযুক্তি শুধুমাত্র পরিধানযোগ্য, স্মার্টফোন অথবা যোগাযোগের পণ্যের ওপরেই নির্ভরশীল নয়। এখন পর্যন্ত কিছু জটিল সম্পর্কের কারণে জ্ঞানের উৎস, তথ্যের উৎস নির্ধারণ এবং ঠিক সময়ে সমস্যা সমাধানের জন্য গবেষকরা প্রতিনিয়ত গবেষণা করে যাচ্ছেন।

প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তা বেইলি বলেন, ‘এটি এন্টারপ্রাইজ মোবাইলিটির তৃতীয় পর্যায়। প্রথম পর্যায়ে আমরা দেখেছিলাম শ্রমিকরা প্রযুক্তিকে স্বাচ্ছন্দ্যে ব্যবহার করেছিল উৎপাদনশীলতা বাড়াতে। বর্তমান এই ডিভাইসটি ব্যবসায়িক লেনদেন ও বিক্রির কাজে ব্যবহার করা যেতে পারে এবং সাপ্লাই চেইনের উন্নতি সাধনের জন্য ডিভাইসটি ভুমিকা রাখতে পারে। এটি নতুন ব্যবসায়িক মডেল এবং প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতেও কার্যকর হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা এমন কোন পৃথিবী দেখতে চাইনা যেখানে নতুন কোন আবিষ্কার শ্রমিকদের ছুড়ে দেবে কর্মক্ষেত্র থেকে। আমরা সুপার ম্যান বানানোর চেষ্টা করছি না কিন্তু আমরা মানুষদের সেরা করতে চেষ্টা করছি তাদের কাজের তথ্য তাদের জানিয়ে।’

ভবিষ্যতে এই ঘড়ি শ্রমিক এবং মালিকপক্ষের মধ্যে একটি উন্নত যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে কাজ করবে বলে প্রতিষ্ঠানটি আশাবাদী।



« (পূর্বের সংবাদ)