মেইন ম্যেনু

শ্রীনগরে শশুড়বাড়ির নির্যাতনে গৃহবধূর মৃত্যু

নাসরিন আক্তার, মুন্সীগঞ্জ থেকে : জেলার শ্রীনগরে শশুড়বাড়ির লোকজনের নির্যাতনের এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। এঘটনায় পুলিশ নিহতের দেবর আওলাদ হোসেন (৪০) ও ননদ সোনিয়া আক্তার (২৬)-কে আটক করে সোমবার মুন্সীগঞ্জ আদালতে প্রেরণ করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, ১০ বছর আগে শ্যামসিদ্দি গ্রামের বাছের খানের ছেলে মোশারফ খানের সাথে দামলা গ্রামের মৃত আবুল হাশেমের মেয়ে শিল্পী বেগমের বিয়ে হয়। তাদের সংসারে ৮ বছরের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। ৪ বছর আগে মোশারফ খান জীবিকার তাগিদে দুবাই চলে যায়। এর পর থেকে গৃহবধূ শিল্পীর ওপর নেমে আসে নির্যাতনের খড়গ।

শিল্পী বেগমের বোন সীমা বেগম জানান, নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে এবং বাবা বেঁচে না থাকায় তার বোন মাঝে মাঝেই তার বাড়িতে চলে আসতো। গত ২১ জুন দুপুরে পারিবারিক কলহকে কেন্দ্র করে শিল্পী বেগমের সাথে তার শশুড়বাড়ির লোকজনের কলহ বাঁধে। এসময় তার শাশুড়ী তাসলিমা বেগম, শ্বশুর বাছের খান, দেবর আওলাদ হোসেন ও রমজান, ননদ সোনিয়া আক্তার, জা সাহানা বেগম মিলে শিল্পীকে বেদম প্রহার করে। নির্যাতনে শিল্পী বেগম জ্ঞান হারিয়ে ফেললে প্রতিবেশীরা তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে নিয়ে যায়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে প্রথমে মিটফোর্ড হাসপাতালে ও পরে ন্যাশনাল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় গত রোববার তার মৃত্যু হয়। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের পর ওই দিন রাতেই তাকে দামলা কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

এঘটনায় শিল্পী বেগমের বোন সীমা বেগম বাদী হয়ে ৬ জনকে এজাহারভূক্ত আসামি কওে সোমবার শ্রীনগর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ সাহিদুর রহমান জানান, দুজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকী আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।