মেইন ম্যেনু

শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে শুভসূচনা বাংলাদেশের

সাফ অঞ্চলের দুই প্রতিপক্ষকে আপাতত হারানোর লক্ষ্য নির্ধারণ করেছিল বাংলাদেশ। এএফসি অনূর্ধ্ব-১৯ ফুটবল বাছাইপর্বের প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে সেই লক্ষ্য পূরণে একধাপ এগিয়েছে সাইফুল বারী টিটুর শিষ্যরা। শুক্রবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ২-০ গোলে হারিয়েছে জনি-রাব্বিরা। বাংলাদেশের পরবর্তী ম্যাচ আগামী রবিবার ভুটানের বিপক্ষে।

শুরু থেকেই দুর্দান্ত খেলেছে বাংলাদেশ। মাঠে প্রতিপক্ষের ওপর প্রাধান্য বিস্তার করলেও গোলের দেখা পাচ্ছিল না বাংলাদেশের তরুণরা। ১৩ মিনিটে কর্ণার আদায় করে নেয় লাল-সবুজ দল। ইব্রাহিমের কর্নার বক্সে বল পেয়েও সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হয়েছেন বাংলাদেশের একাধিক ফুটবলার। ২০ মিনিটে রোহিত সরকারের কর্নার থেকে বক্সে বল পেয়ে বাঁ প্রান্ত থেকে হেড নেন মান্নাফ রাব্বি। গোলরক্ষক বল ফিস্ট করলে ফিরতি বলে আবারও শট নেন ইব্রাহিম। কিন্তু এবারও বল জড়ায়নি জালে। ৩২ মিনিটে বক্সে বল পেয়েও গোলের সহজ সুযোগ নষ্ট করেছেন মান্নাফ রাব্বি। তাই প্রথমার্ধ গোলশূন্যই থেকেছে।

দ্বিতীয়ার্ধে বাংলাদেশের খেলায় গতি আরও বেড়েছে। ৪৯ মিনিটে ডান প্রান্ত থেকে মান্নাফ রাব্বির ক্রসে বক্সে ডিফেন্ডাররা ক্লিয়ার করতে চেষ্টা করলেও বল পেয়ে যান রোহিত। বক্সের মধ্য থেকেই জোড়ালো শট নিলেও লঙ্কান গোলরক্ষক সফলভাবে গ্রিপে নিয়েছেন। ৬৭ মিনিটে দেখা দেয় গোল। ইব্রাহিমের ফ্রি কিক রোহিত সরকার বক্সে পেয়ে শট নিলে ডিফেন্ডারদের গায়ে লেগে ফেরত আসে। ফিরতি বলে শট নিয়ে শ্রীলঙ্কার জালে বল পাঠান ফরোয়ার্ড মান্নাফ রাব্বি (১-০)।

পেনাল্টি থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেছেন অধিনায়ক মাশুক মিয়া জনি। ৮৩ মিনিটে ইব্রাহিমের শট বক্সের মধ্যে লঙ্কান অধিনায়ক দানুসকার হাতে লাগলে পেনাল্টির নির্দেশ দেন রেফারি আব্দুল্লাহ মোহামেদ আল হেলালী। বাংলাদেশের অধিনায়ক মাসুক মিয়া জনি নিখুঁত শটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন (২-০)।

পরে আরও সুযোগ পেলেও আর গোল করতে পারেনি বাংলাদেশ। তবে ২-০ গোলের জয়ে প্রথম ম্যাচেই পূর্ণ ৩ পয়েন্ট আদায় করে নিয়েছে সাইফুল বারী টিটুর শিষ্যরা।