মেইন ম্যেনু

শ্রীলঙ্কায় বেড়াতে গেলে যে সামুদ্রিক খাবারগুলো অবশ্যই খাবেন

সামুদ্রিক খাবার খেতে ভালোবাসেন? সত্যিই খুব কম খাবারই রয়েছে যেগুলো শরীর আর মনকে একই সাথে পুরোপুরি ভিন্ন একটা আবেশ দেয়। বিশেষ করে নিত্যনৈমত্তিক খাবারের পাশাপাশি খানিকটা সামুদ্রিক খাবার নিয়ে আসতে পারে আপনার আটপৌরে জিভের স্বাদে অনেকটাই নতুনত্ব। শীতের এই সময়টায় ঘোরাফেরা খুব পরিচিত একটি কাজ। যদি আপনারও ইচ্ছে থাকে এ সময়টায় নতুন কোন দেশ থেকে ঘুরে আসবার আর প্রিয় হয়ে থাকে সামুদ্রিক খাবার, তাহলে একটুও দেরী না করে বেছে নিন সামুদ্রিক খাবারের জন্যে সবচাইতে জনপ্রিয় দেশ শ্রীলঙ্কাকে।

সমুদ্রে বন্দী

ভারতের দক্ষিণে অবস্থিত ছোট্ট দেশ শ্রীলঙ্কার চারপাশটাই সমুদ্র দিয়ে ঘেরা। আর তাই সমুদ্র যেমন ঘিরে রেখেছে এখানকার মানুষের দৈনন্দিন কাজ-কর্মকে, তেমনি দখল করে নিয়েছে তাদের খাওয়া-দাওয়ার অনেকটা অংশও । শ্রীলঙ্কা এমনিতে বাংলাদেশ থেকে খুব একটা দূরে নয়। প্রতিবেশীই বলা চলে অনেকটা। তবুও বাংলাদেশ থেকে অনেকটাই আলাদা তাদের কৃষ্টি ও সংস্কৃতি। আর এ ভিন্নতার প্রধান কারণ হচ্ছে এখানকার অসীম সমুদ্র। যেটি কিনা ভিন্নতা তৈরি করে দিয়েছে এ দেশের মানুষের খাবারেও।

কী কী খাবেন?

সিএনএন এর মতানুসারে পর্যকদের জন্যে শ্রীলঙ্কার কিছু সামুদ্রিক খাবার খাওয়াটা অনেকাংশে বাধ্যতামূলক। আর সেগুলো হচ্ছে-

১. ফিশ আমউল থাইয়াল

মাছের টক তরকারী নামে পরিচিত এই শ্রীলঙ্কান খাবারটি তৈরি হয় সামুদ্রিক মাছ দিয়ে। এক্ষেত্রে টুনা মাছটিই বেশি ব্যবহৃত হয়ে থাকে। মাছকে প্রথমে চেপে ভর্তা করে নিয়ে পরে মশলা মিশিয়ে নিতে হয় প্রথমটায় এ খাবার তৈরিতে। এপর তাতে টক স্বাদের জন্যে যোগ করা হয় কিছু ফলের রস।

২. জাফনা ক্র্যাব কারি

সামুদ্রিক খাবারের পাশাপাশি নারকেলেও জন্যেও বিখ্যাত শ্রীলঙ্কা। আর এই খাবারটি তৈরিতে সামুদ্রিক কাঁকড়ার সাথে নারকেল বাটাও মেশানো হয় এখানে । এছাড়াও অন্যান্য প্রয়োজনীয় মশলা তো রয়েছেই। পৃথিবীর সবচাইতে সুস্বাদু কাঁকড়া রান্না খাওয়ার সুযোগ না হারাতে চাইলে একবার অবশ্যই আপনার স্বাদ নেওয়া উচিত জাফনা ক্র্যাব কারির।

৩.স্কুইড কারি

খাবারের ক্ষেত্রে স্কুইড অনেকে বেশি রান্না করে ফেলেন। অনেকে কম। অনেকে ঠিক করে এটি তৈরিই করতে পারেননা। ফলে নিজের সবটুকু স্বাদ প্রকাশ করতে পারেনা সমুদ্রের এই মাছটি। তবে শ্রীলঙ্কায় গেলে অবশ্যই আপনার কাজ হবে স্কুইডের তরকারী খেয়ে আসা। সামুদ্রিক এই প্রাণীটিকে অসাধারণ উপায়ে ও প্রণালীতে রান্না করতে পারে শ্রীলঙ্কানরা যেটা কিনা নিমিষেই আপনার জ্বীভে এনে দেবে জল।