মেইন ম্যেনু

সংবিধান সংশোধনের উদ্যোগ নিচ্ছে ফ্রান্স

প্যারিস হামলার পর দেশের লোকজনের গতিবিধির ওপর নজরদারি বাড়ানোর জন্য সংবিধান সংশোধনের প্রস্তাব দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া হঁলাদে। একই সঙ্গে গোটা দেশ জুড়ে আরোপিত জরুরি অবস্থার মেয়াদ আরো তিন মাস বলবৎ রাখার জন্য পার্লামেন্টে একটি নতুন বিল আনারও প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি। কেননা ফ্রান্সে ১২ দিনের বেশি জরুরি অবস্থা বহাল রাখার নিয়ম নেই।

সোমবার এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, বুধবার তারা পার্লামেন্ট জরুরি অবস্থ বলবৎ রাখার ওপর একটি বিল আনবেন। এ সপ্তাহ শেষ হওয়ার আগেই ওই বিলের ওপর ভোটাভুটিতে অংশ নেবেন সংসদ সদস্যরা।

এ খবরটি সোমবারই জানিয়েছিল এএফপি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি রাজনৈতিক সূত্র সংবাদ মাধ্যমটিকে বলেছিল, ‘তিনি রোববার আমাদের কাছে দেশে আরোপিত জরুরি অবস্থা একটানা তিন মাস বলবৎ রাখার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।’ তবে ফ্রান্সে ১২ দিনের বেশি জরুরি অবস্থা বহাল রাখার নিয়ম নেই। এ কারণেই পার্লামেন্টে নতুন বিল আনতে যাচ্ছেন প্রেসিডেন্ট হঁলাদে। আসন্ন জলবায়ু সম্মেলনকে কেন্দ্র করে তিনি এ সিদ্ধান্ত নিতে চাইছেন বলে জানা গেছে।

একই সঙ্গে লোকজনের গতিবিধির ওপর নজরদারি বাড়ানোর জন্য দেশের সংবিধান সংশোধনেরও প্রস্তাব দিয়েছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট। তিনি তার প্রধানমন্ত্রীকে এজন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেয়ার তাগিদ দিয়েছেন।

দেশে সন্ত্রাসীদের সঙ্গে সম্পর্কিত নাগরিকদের ওপর অবাধে পুলিশি ও গোয়েন্দা তৎপরতা চালানো, নজরদারি বৃদ্ধি এবং অস্ত্র পাচার হ্রাসের লক্ষ্যে ওই সংশোধনী আনা হচ্ছে। একই সঙ্গে তিনি দেশের নিরাপত্তা বৃদ্ধি এবং ফরাসি জনগণের জন্য হুমকি হিসেবে বিবেচিত বিদেশিদের নির্বাসিত করারও প্রস্তাব দিয়েছেন। বিদেশি বলতে তিনি সিরীয় শরণার্থীদের কথাই বুঝিয়েছেন। সন্দেহভাজন এক হামলাকারীর লাশের কাছে সিরীয় পাসপোর্ট উদ্ধার করার পরই তিনি এই কথা জানালেন। তিনি জোর দিয়ে বলেছেন,‘সন্ত্রাসবাদ প্রতিহত করতে আমরা অবশ্যই আমাদের সংবিধান পরিবর্তন করব।’

একই সঙ্গে তিনি আগামী দুই বছরে অতিরিক্ত ৫ হাজার পুলিশ নিয়োগের ঘোষণা দিয়েছেন। এছাড়া দেশের বর্তমান প্রতিরক্ষা বাজেটে কোনো কাটছাট না করারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট হঁলাদে।