মেইন ম্যেনু

সতর্ক করে জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে অব্যাহতি

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে কঠোরভাবে সতর্ক করে দিয়ে আদালত অবমাননার অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।

মঙ্গলবার সকালে ট্রাইব্যুনাল-২ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে ভবিষ্যতে আদালত ও বিচারকদের নিয়ে বিরূপ মন্তব্য না করতে কঠোরভাবে সতর্ক করে দেন ট্রাইব্যুনাল।

জাফরুল্লাহ চৌধুরীর পক্ষে উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র আইনজীবী আব্দুল বাসেদ মজুমদার, রাষ্টপ্রক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ।

প্রসঙ্গত, গত ৬ জুলাই জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার এ অভিযোগ আনেন তিনজন মুক্তিযোদ্ধা ও গণজাগরণ মঞ্চের একাংশের দুজন সংগঠক। ৭ জুলাই এ আবেদনের ওপর শুনানি করেন আইনজীবী খান মোহাম্মদ শামীম আজিজ ও মোর্শেদ আহমেদ খান। শুনানিতে তারা বলেন, ১০ জুন আদালত অবমাননার দায়ে জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে সাজা দেন ট্রাইব্যুনাল-২। ওই দিন রায়ের পর আদালত থেকে বেরিয়ে তিনি সাংবাদিকদের কাছে ট্রাইব্যুনাল-২-এর বিচারকদের সম্পর্কে মন্তব্য করেন। এরপর ১২ জুলাই জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল জারি করে ট্রাইব্যুনাল।

এর আগে সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যানের সাজায় উদ্বেগ জানিয়ে অবমাননাকর বক্তব্য দেয়ার অভিযোগে ১০ জুন জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে এজলাসে আসামির কাঠগড়ায় এক ঘণ্টার সাজা এবং একই সঙ্গে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ড দেয় ট্রাইব্যুনাল। ওই দিনই জাফরুল্লাহ এজলাসে সাজা ভোগ করলেও অর্থদণ্ডের বিরুদ্ধে তিনি সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে আবেদন করেন। এরপর আপিল বিভাগে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ায় ২৮ জুলাই তার সাজা বাতিল করেন আপিল বিভাগ।