মেইন ম্যেনু

সন্তানের সঙ্গে বাবা-মাকে যুক্ত রাখবে রোবট [ভিডিও]

ম্যাট ওয়াকার নামে এক অস্ট্রেলিয়ান বিবাহ বিচ্ছেদ হওয়ার পর বাচ্চা লালন পালনের জন্য সমস্যায় ভুগছিলেন। কারণ তিনি থাকতেন যুক্তরাষ্ট্রে কিন্তু তার বাচ্চারা থাকতো অস্ট্রেলিয়াতে। কীভাবে সারাদিন বাচ্চাদের সময় দেয়া যায় এই চিন্তা থেকে তিনি বানান একটি রোবট।

যে রোবট সার্বক্ষণিক বাচ্চাদের সাথে তাকে সংযুক্ত রাখবে এবং প্রতি মুহূর্তেই বাচ্চাদের তিনি দেখতে পাবেন। তিনি রোবটটির নাম দেন রেম্বেলবোট।

এই রোবটটি তৈরি করতে তার সময় লেগেছে তিন বছর। এটি একটি মোবাইল ফোন সংযুক্ত রোবট। যে মোবাইল ফোনের রোবটে সবসময় ম্যাটকে দেখা যাবে আর অন্য আরেকটি ক্যামেরার সাহায্যে তিনি সবসময় দেখেন নিজের সন্তানদের।

গণমাধ্যমে দেয়া এক সাক্ষাতকারে ম্যাট বলেন, ‘আমার রোবট সম্পর্কে আগ্রহ ছিল। তবে এ সম্পর্কে আমার কোনো অভিজ্ঞতা ছিল না। আমি বাস্তব জীবনে এর প্রয়োগ না দেখা পর্যন্ত একে এতটা গুরুত্ব দেইনি। নিজের প্রয়োজনে রোবট বানানোর আগে আমি বটিফুল নামে আরেকটি রোবট ব্যবহার করতাম যা আমাকে আমার পরিবারের সাথে সংযুক্ত রাখত।’

2016_03_20_13_45_24_BrsAIBT1ZowLqLtZAddzpW8BW8cXfM_original

নিজের জীবনের কথা বলতে গিয়ে ম্যাট বলেন, ‘ অনেকদিন আগে যখন আমার বিবাহ বিচ্ছেদ হয় আমার সন্তানদের জন্য সময়গুলো খুব জটিল ছিল। কারণ বিবাহ বিচ্ছেদ খুব ভয়ংকর। তখন আমার বন্ধু আমাকে বটিফুল রোবট সম্পর্কে ধারণা দেয়। তখন আমি সিদ্ধান্ত নিলাম এই রোবটটি আমার সন্তানদের সাথে রাখার এবং আমি আমার পরিবারের সাথে সংযুক্ত ছিলাম। কিন্তু হঠাৎ করে এই রোবটটি অকার্যকর হয়ে যায়। আমি চিন্তা করলাম, ও মাই গড! আমার সন্তানদের সাথে আমার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেল। এটা খুব বিশ্রী ছিল। আমি কখনোই এটা চাই নি। কিন্তু কোন কিছুতেই হচ্ছিল না।’

এরপর তিনি নিজেই রোবট বানান। এই রোবটটা সন্তানদের পাশে থাকলেও সন্তানদের কোন কাজে কখনো ব্যাঘাত ঘটায় না। এই রোবটটি ম্যাটকে সবসময় তার সন্তানের কাছে থাকতে সহযোগিতা করে। এই রোবট না থাকলে স্কুলের বন্ধের দিনগুলো ছাড়া ম্যাট তার সন্তানদের কাছে পেতেন না। তবে রেম্বেলবোট এখনও পর্যন্ত অভ্যন্তরে কাজ করতে পারে। বাসার বাইরে এটি এখনও কাজ করতে অক্ষম। ম্যাট বাসার বাইরেও কীভাবে রোবটটিকে কার্যকর রাখা যায় তা নিয়ে গবেষণা করে যাচ্ছে।

শিশুদের ক্ষেত্রে সময় নিয়ে ল্যাপটপ স্ক্রিন বা মোবাইলের সামনে বসে থাকা হয় না। সাধারণত শিশুরা এক জায়গায় বসে না থেকে নড়াচড়া করতে পছন্দ করে। সেক্ষেত্রে ল্যাপটপ বা মোবাইল দিয়ে সন্তানদের পরিপূর্ণভাবে কাছে পাওয়া যায় না। রেম্বেলবোটে স্কাইপের মাধ্যমে মোবাইলের সাহায্যে ভিডিও চ্যাট করা যায়। এতে শিশুটিকে মোবাইলটি বহন করতে হয় না বরং রোবটটি শিশুটিকে অনুসরণ করে। ৭ থেকে ৯ বছরের শিশুর জন্য রেম্বেলবোট বেশ উপকারী।

ইতোমধ্যে তার রোবটটি জনপ্রিয় হতে শুরু করেছে। রোবটটিতে জিপিএস সিস্টেম এবং একটি রোবিক ভিডিও ক্যাম ব্যবহার করা হয়েছে। এটি চুরি হওয়ার সম্ভাবনাও নেই। কারণ যে চুরি করতে চাইবে এই ক্যাম তাকেও ভিডিও করে নেবে। এবং এই রোবটটিকে জিপিএস দিয়ে নিয়ন্ত্রণ করা যায়।

রোবটটির সংবাদ বিভিন্ন ওয়েবসাইটে প্রকাশ হওয়ার পর অনেকেই তাকে ইমেইল করছেন এবং এ ধরণের রোবটের চাহিদার কথা জানাচ্ছেন। তবে তিনি বাণিজ্যিকভাবে এই রোবট উৎপাদনে যাবেন কি না এ ব্যাপারে কোন তথ্য তিনি প্রকাশ করেন নি।

দেখুন ভিডিওতে: