মেইন ম্যেনু

সন্ত্রাসী হামলায় আহত জাপা নেতা আইসিইউতে

সন্ত্রাসী হামলায় আহত রংপুর মহানগর জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব এসএম ইয়াসিরকে শনিবার সন্ধ্যায় রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) স্থানান্তর করা হয়েছে।

হামলার ঘটনায় জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ-সমাবেশ করে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে হরতালসহ ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে। এ ঘটনায় এখনো কেউ গ্রেফতার বা মামলা হয়নি বলে পুলিশ জানিয়েছে।

শুক্রবার মুন্সিপাড়া কবরস্থানে বাবার কবর জিয়ারত শেষে বাড়ি ফেরার পথে সন্ত্রাসীরা তাকে মাথায় কুপিয়ে আহত করে। এ সময় ইয়াসির মোটরসাইকেলে করে কোতোয়ালি থানায় গিয়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। পরে তাকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর প্রাথমিক অস্ত্রোপচারের পর তাকে পোস্ট অপারেটিভ ওয়ার্ডে চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে রাখা হয়। পরে শনিবার সন্ধ্যায় তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। বর্তমানে তিনি আইসিইউ বিভাগের দায়িত্বরত ডা. বিডি বিধু ও জামাল উদ্দিন মিন্টুর তত্ত্বাবধানে রয়েছেন।

এই দুই চিকিৎসক জানান, এ মুহূর্তে ইয়াসিরের ব্যাপারে কিছু বলা যাচ্ছে না। তিনি আমাদের পর্যবেক্ষণে রয়েছেন।

কোতোয়ালী থানার ওসি আব্দুল কাদের জিলানী জানান, ইয়াসিরকে কুপিয়ে আহত করার ঘটনায় এখনো কোনো মামলা হয়নি। তবে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান চলছে।

এদিকে ইয়াসিরকে হত্যাচেষ্টার প্রতিবাদে রংপুর জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা নগরীতে বিক্ষোভ সমাবেশ করে। সেন্ট্রাল রোডের দলীয় কার্যালয় থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

এরপর পায়রা চত্বরে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, মহানগর জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফা, জেলা সদস্য সচিব সাবেক সাংসদ হুসেইন মকবুল শাহরিয়ার আসিফ, যুব সংহতি নেতা ইউসুফ আহমেদ প্রমুখ।

বক্তারা পুলিশ প্রশাসনকে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়ে বলেন, ওই সময়ের মধ্যে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে পুলিশ ব্যর্থ হলে হরতালসহ কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে।